fbpx

অভিযুক্ত ধর্ষকের শাস্তির দাবিতে ক্র্যাবে সংবাদ সম্মেলন

Pinterest LinkedIn Tumblr +
Advertisement

শনিবার ২ জানুয়ারি ২০২১ রাজধানীর ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ (ক্র্যাব) মিলনায়তনে ধর্ষণে অভিযুক্ত একটি পোশাক শিল্প কারখানার উর্দ্ধতন কর্মকর্তার শাস্তির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন এক নারী।

সংবাদ সংম্মেলনে তিনি বলেন, আমি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে সেলস এন্ড মার্কেটিং বিভাগে এক্সিকিউটিভ পদে চাকরি করতাম। তখন ভালুকাস্থ একটি টেক্সটাইল লিমিটেডের নতুন ফ্যাক্টরির জন্য আমাদের কোম্পানি থেকে পণ্য ক্রয়ের আদেশ দেওয়া হয়। এসময় ওই কোম্পানির উচ্চপদস্থ এক কর্মকর্তার সঙ্গে করপোরেট গ্রাহক হিসাবে আমার সাথে পরিচয় ঘটে। ২০১৮ সালে ১৯ জানুয়ারি বিকেল ৫টায় তিনি তার উত্তরার অফিসে পণ্য ক্রয়ের আদেশ দেবেন বলে ডেকে নিয়ে যান আমাকে। পরে সেখানে আমাকে ধর্ষণ এবং গোপনে ভিডিও ও ছবি ধারণ করেন তিনি। আমি লোকলজ্জা ও সন্তানের কথা ভেবে বিষয়টি গোপন রাখি এবং মানসিক বিপর্যয় হয়ে পড়লেও কাউকে কিছু বলার সাহস পাচ্ছিলাম না।

নারী আরো বলেন, ধর্ষণের ঘটনার পরে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে ধর্ষক উত্তরা ১৩ নম্বর সেক্টরে অবস্থিত লুবানা হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে ভয়-ভীতি দেখিয়ে আমার গর্ভপাত ঘটান। পরে আত্মীয়-স্বজনদের পরামর্শে গত ১৯ অক্টোবর ২০২০ তারিখে উত্তরা পশ্চিম থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করি যার নাম্বার(২৫)১০/২০২০। মামলা করার পর ধর্ষক ও তার লোকজন আমাকে মেরে ফেলার জন্য ভয়-ভীতি দেখিয়ে আসছেন এবং মামলা তুলে নেওয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করছেন। ভয়ে এখন আমি নানা জায়গায় আত্মগোপন করে আছি।

ভুক্তভোগী নারী সংবাদ সম্মেলনে আরো বলেন, উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিয়ে আসা ধর্ষক প্রতিনিয়ত আমাকে এবং আমার পরিবারের সদস্যদের ভয়-ভীতি দেখাচ্ছেন। তাদের ভয়ে আমার সন্তান, বৃদ্ধ মা-বাবা ও পরিবারের সদস্যরা অসহায় পড়েছি। আসামি এবং তার লোকজন এতটাই ক্ষমতাধর যে, তারা টাকা দিয়ে প্রভাব বিস্তার করে আমার দায়ের করা মামলাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা চালাচ্ছে। এদিকে লুবানা হাসপাতাল আমাকে সঠিক তথ্য দিয়ে সাহায্য করছেন না। থানা পুলিশের কাছ থেকেও আমি কোনো সাড়া পাচ্ছি না।

সংবাদ সম্মেলনে নারী বলেন, পুলিশ যাতে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে চার্জশিট দেয়, আমি যাতে ন্যায় বিচার পাই সেজন্য গণমাধ্যমের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, পুলিশের মহাপরিদর্শক, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

Advertisement
Share.

Leave A Reply