fbpx
BBS_AD_BBSBAN
৮ই ডিসেম্বর ২০২২ | ২৩শে অগ্রহায়ণ ১৪২৯ | পরীক্ষামূলক প্রকাশনা

অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকায় আতঙ্ক

Pinterest LinkedIn Tumblr +
Advertisement

অ্যাস্ট্রাজেনেকার কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন নেয়ার পর শরীরে রক্ত জমাট বেঁধে যাচ্ছে, এ ধরনের অভিযোগ ওঠায় টিকা নিয়ে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে বিশ্বের কয়েকটি দেশে। ইউরোপের কয়েকটা দেশে সাময়িক স্থগিতও করা হয়েছে এই টিকাদান কর্মসূচি।

তবে ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বলছে, অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা নিরাপদ। ফ্রান্স, কানাডাও বলছে, টিকা কর্মসূচি স্থগিতের প্রয়োজন নেই।

এর আগে ৬০ বছর বয়সী এক নারীর এই ভ্যাকসিন গ্রহণের পর শরীরে রক্ত জমাট বেঁধে মৃত্যুর হয়। এর রেশ ধরেই বৃহস্পতিবার দুই সপ্তাহের জন্য অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন কার্যক্রম স্থগিতের ঘোষণা দেয় ড্যানিশ স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ।

এক বিবৃতিতে তারা জানায়, অ্যাস্ট্রাজেনেকার কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন নেওয়ার পর মানুষের শরীরে রক্ত জমাট বাঁধার অভিযোগকে কেন্দ্র করে এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। তবে ভ্যাকসিন ও রক্ত জমাট বাঁধার মধ্যে আদৌ কোনও সংশ্লিষ্টতা রয়েছে কিনা তা এখনও নিশ্চিত নয় বলেও জানিয়েছেন ড্যানিশ স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ।

এ ঘটনায় ডেনমার্কের পর একই পদক্ষেপ ঘোষণা করেছে নরওয়ে। তারাও ভাকসিন কার্যক্রম স্থগিত করেছে। ইউরোপীয় ইউনিয়ন বলছে, অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা ব্যবহার করাটা এখনও নিরাপদ। তবে ফ্রান্সসহ অন্য দেশগুলো বলছে তারা এই ভ্যাকসিনটি পর্যবেক্ষণে রাখতে চায়।

এর আগে অস্ট্রিয়াতে ঘটেছে একই ঘটনা। রক্ত জমাট বেঁধে ৪৯ বছর বয়সী এক নারীর মৃত্যুর পর অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিনের একটি চালানের ব্যবহার স্থগিত করেছে তারা। ইউরোপের ১৭টি দেশে ১০ লাখ ডোজের ওই চালানটি পাঠানো হয়েছিল। এস্তোনিয়া, লাটভিয়া, লিথুনিয়া ও লুক্সেমবার্গও এর ব্যবহার স্থগিত করেছে।

ফ্রান্সের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ওলিভিয়ের ভেরান জানান, তিনি ফরাসি ওষুধ সংস্থার সঙ্গে আলাপ করেছেন। এই টিকা কর্মসূচি স্থগিত করার প্রয়োজন নেই বলে জানিয়েছেন তারা।

এছাড়া ইএমএ জানিয়েছে, ৯ মার্চ নাগাদ ইউরোপীয় অর্থনৈতিক এলাকায় ভ্যাকসিন গ্রহণকারী ৩০ লাখের বেশি মানুষের মধ্যে ২২ জনের শরীরে রক্ত জমাট বাঁধতে দেখা গেছে।

শুধু ইউরোপীয় দেশই নয়, অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা প্রয়োগ স্থগিত করেছে এশীয় দেশ থাইল্যান্ডও। শুক্রবার টিকা দান শুরুর কথা থাকলেও দেশটির প্রধানমন্ত্রী এই কর্মসূচি বাতিল করেছেন। অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা স্থগিত করলেও করোনাভ্যাক প্রয়োগ অব্যাহত রাখবে বলে জানিয়েছে দেশটি।

Advertisement
Share.

Leave A Reply