fbpx

কথা-কাটাকাটির জেরে খুন হন কনস্টেবল মনিরুল

Pinterest LinkedIn Tumblr +
Advertisement

রাজধানীর গুলশান থানাধীন বারিধারা ডিপ্লোমেটিক জোন এলাকার ফিলিস্তিন দূতাবাসের সামনে দায়িত্ব পালনকালে কনস্টেবল মনিরুল ইসলামকে গুলি করে হত্যা করেন কাউসার আলী নামে অপর এক পুলিশ সদস্য। কথা-কাটাকাটির জেরে এই ঘটনা ঘটেছে বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন তদন্ত-সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তারা।

জানা গেছে, ফিলিস্তিন দূতাবাসের সামনে ডিউটিরত অবস্থায় কনস্টেবল মনিরুল ইসলামের সাথে বাগ্‌বিতণ্ডায়  জড়ান কনস্টেবল কাওসার আহমেদ। একপর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে মনিরুল হককে খুব কাছ থেকে গুলি করেন কাউসার। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান মনিরুল। তবে কী নিয়ে তাদের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হচ্ছিল, তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

গতকাল শনিবার রাতে ফিলিস্তিন দূতাবাসের নিরাপত্তাকর্মীদের কক্ষে গুলির এ ঘটনা ঘটে। এসময় গুলিবিদ্ধ হয়েছেন পথচারী জাপান দূতাবাসের এক গাড়িচালক। তিনি গুলশানের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় আজ গুলশান থানায় মামলা হয়েছে। মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে কাউসার আলীকে।

এদিকে থানায় নিয়ে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হলেও মুখ খুলছেন না কাউসার আলী। পুলিশ বলছে, পাগলের বেশ ধরেছেন কনস্টেবল কাউসার। কোনো প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছেন না তিনি।

তদন্ত-সংশ্লিষ্ট পুলিশ সূত্র বলছে, কাওসারকে মানসিকভাবে হতাশাগ্রস্ত মনে হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি সঠিক তথ্য দিচ্ছেন না। তার গত ১৫ দিনের কর্মকাণ্ড পর্যালোচনা করা হচ্ছে। তিনি যাদের সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেছেন, যাঁদের সঙ্গে থেকেছেন, তাঁদের সঙ্গে তদন্তকারীরা কথা বলবেন।

Advertisement
Share.

Leave A Reply