fbpx
BBS_AD_BBSBAN
৫ই ডিসেম্বর ২০২২ | ২০শে অগ্রহায়ণ ১৪২৯ | পরীক্ষামূলক প্রকাশনা

কমলাপুর রেল স্টেশন ভাঙার প্রস্তাব

Pinterest LinkedIn Tumblr +
Advertisement

ভেঙে ফেলা হচ্ছে কমলাপুর রেল স্টেশনের ঐতিহ্যবাহী বিল্ডিংটি। ঢাকার আইকনিক এই স্থাপনাটি ভেঙে সেখানে তৈরি হবে ঢাকা মেট্রো রেলের স্টেশন।

মেট্রোরেলকে বাড়তি জায়গা দিতে গিয়ে পুরোপুরি ঢাকা পড়ে যাবে বাংলাদেশ রেলওয়ের আইকনিক এই ভবনটি। এজন্য বিদ্যমান স্টেশন বিল্ডিংটি ভেঙে উত্তরপাশে সরিয়ে নেয়ার প্রস্তাব এসেছে, যাতে সম্মতিও দিয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ে।

প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন পেলেই এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় কাজ শুরু হবে বলেও জানানো হয়।

রেলপথমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন গণমাধ্যমকে বলেন, ‘মেট্রোরেল-৬-এর জন্য যে নকশা করা হয়েছিল, তাতে বিদ্যমান কমলাপুর স্টেশনের সামনে মেট্রোরেল স্টেশনের পাশাপাশি দক্ষিণ দিকের তিন রাস্তার মোড় পর্যন্ত অংশ এলিভেটেড হওয়ার কথা ছিল। এলিভেটেড লাইনটি তিন রাস্তার মোড় পর্যন্ত এগিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছিল মেট্রোর ট্রেনগুলো ঘোরানোর সুবিধার্থে। তাদের এ নকশায় আমাদের বিদ্যমান স্টেশন বিল্ডিংটি ঢেকে যায়। এখন কাজিমা করপোরেশন প্রস্তাব করেছে স্টেশন বিল্ডিংটিই উত্তরপাশে সরিয়ে দেয়ার। এতে মেট্রোরেলের এলিভেটেড অংশটি তাদের স্টেশন পর্যন্ত এসেই শেষ হয়ে যাবে। বিপরীতে বিদ্যমান রেলওয়ে স্টেশনটি উত্তরপাশে নিয়ে গেলে যে ফাঁকা জায়গা থাকবে, মেট্রোরেলের ট্রেনগুলো শান্টিংয়ের জন্য প্রয়োজনীয় অবকাঠামো সেখানে গড়ে তোলা হবে।’

তবে কি চিরচেনা কমলাপুর রেল স্টেশনটি বদলে যাচ্ছে? কী হবে তার নতুন রূপ। এ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, ‘কমলাপুরে বিদ্যমান রেলওয়ে স্টেশন বিল্ডিংটি বাংলাদেশের ঐতিহাসিক স্থাপনাগুলোর একটি। এটি উত্তরপাশে সরানো হলেও তার নকশায় কোনো পরিবর্তন আনা হবে না। নতুন বিল্ডিং বর্তমান বিল্ডিংয়ের আদলেই তৈরি করা হবে।’

১৯৫০ এর দশকের শেষের দিকে নির্মাণ শুরু হয়ে ১৯৬৮ সালে শেষ হয় কমলাপুর রেল স্টেশনের নির্মাণ কাজ। ১৯৬৮ সালের ২৭শে এপ্রিল স্টেশনটি উদ্বোধন করা হয়। এর নকশা করেন মার্কিন স্থপতি রবার্ট বাউগি।

Advertisement
Share.

Leave A Reply