fbpx
BBS_AD_BBSBAN
৩০শে সেপ্টেম্বর ২০২২ | ১৫ই আশ্বিন ১৪২৯ | পরীক্ষামূলক প্রকাশনা

ক্রিমিয়ায় রুশ অস্ত্রগুদামে বিস্ফোরণ, নাশকতার অভিযোগ মস্কোর

Pinterest LinkedIn Tumblr +
Advertisement

ক্রিমিয়ায় একটি গোলাবারুদের গুদামে, নাশকতা সৃষ্টিকারীরা হামলা চালিয়েছে বলে দাবি করেছে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

রুশ অধিকৃত ক্রিমিয়ার ডিজানকোই শহরের কাছে এই গুদামে বিস্ফোরণের পর নিকটবর্তী বিভিন্ন অবকাঠামোরও ক্ষতি হয়েছে, এবং প্রায় দুই হাজার মানুষকে সেখান থেকে অন্যত্র সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

বৃটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে একথা বলা হয়েছে।

মাত্র এক সপ্তাহ আগে ক্রিমিয়ায় রাশিয়ার একটি বিমান ঘাঁটিতেও হামলা হয়েছিল, যেটিকে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা বলে ধারনা করা হচ্ছে।

তবে ইউক্রেনের সরকার এই দুটি হামলার কোনটিরই দায়িত্ব স্বীকার করেনি।

বিবিসি সংবাদদাতারা জানিয়েছেন, মঙ্গলবার ক্রিমিয়ায় রাশিয়ার অস্ত্রগুদামে একের পর এক যেসব বিস্ফোরণ ঘটে, সেগুলোর শব্দ অনেক দূর থেকে শোনা যাচ্ছিল।

শুরুতে রুশরা বলেছিল, কোন আগুনের কারণে এই বিস্ফোরণ ঘটেছে।

কিন্তু এখন তারা এজন্যে ‘নাশকতাকারীদের’ দায়ী করছে।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, ক্রিমিয়ার মাইস্কোয়ে গ্রামের কাছে একটি অস্থায়ী অস্ত্রগুদামে মস্কো সময় সকাল সোয়া ছয়টায় এক বিস্ফোরণ ঘটে।

এই বিস্ফোরণের কারণ তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, সেখানে কারো হতাহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।

তবে রুশদের নিয়োগ করা আঞ্চলিক প্রধান সের্গেই আক্সিনভ ঘটনাস্থল ঘুরে জানিয়েছেন, প্রায় দুই হাজার লোককে সেখান থেকে পাশের গ্রামে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

মাত্র গত সপ্তাহেই ক্রিমিয়ার কৃষ্ণসাগর উপকূলের এক বিমান ঘাঁটিতে একের পর এক বিস্ফোরণে কয়েকটি রুশ যুদ্ধবিমান ধ্বংস হয়।

ইউক্রেন কখনোই প্রকাশ্যে স্বীকার করেনি যে, তারাই এসবের পেছনে রয়েছে।

তবে প্রেসিডেন্টের এক মুখপাত্র বলেছিলেন, ক্রিমিয়ায় অসামরিকীকরণ প্রক্রিয়া চলছে, যা থেকে ইঙ্গিত পাওয়া যায় যে এসব বিস্ফোরণ দুর্ঘটনাবশত ঘটেনি।

২০১৪ সালে ইউক্রেনিয় ভূখন্ড ক্রিমিয়া দখল করে নেয় রাশিয়া, এরপর তারা এই অঞ্চলটিকে রাশিয়ার অংশ বলে ঘোষণা করে।

Advertisement
Share.

Leave A Reply