fbpx

গাজায় হাসপাতালে ইসরায়েলের বিমান হামলা, নিহত ৫০০

Pinterest LinkedIn Tumblr +
Advertisement

মঙ্গলবার অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় আল-আহলি আরব হাসপাতালে ইসরায়েল বিমান হামলা করে। এতে অন্তত পাঁচশ মানুষ প্রাণ হারিয়েছে। গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এমন তথ্য জানিয়েছে।

হামাস সরকার এই হামলাকে যুদ্ধাপরাধ হিসেবে আখ্যা দিয়েছে। এক বিবৃতিতে বলা হয়, ইসরায়েলি হামলায় আহত এবং বাস্তুচ্যুত লোকেদের পাশাপাশি অসুস্থরাও এই হাসপাতালে ছিলেন।

গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছিল, ইসরায়েলের বোমা হামলায় হাসপাতালটির ধ্বংসাবশেষের নিচে কয়েকশ লোক চাপা পড়েছে। এর আগে মন্ত্রণালয় জানিয়েছিল, আল-আহলি আরব হাসপাতালে ২০০ লোকের প্রাণ গেছে।

গাজার হাসপাতালে হামলার ঘটনাকে যুদ্ধাপরাধ হিসেবে আখ্যা দিয়েছে শীর্ষ ফিলিস্তিনি মানবাধিকার সংগঠন আল মিজান। সংগঠনটি বলছে, এটি যুদ্ধাপরাধ, সহজ কথা।

ফিলিস্তিনি সিভিল ডিফেন্স বলছে, গাজা শহরের আল-আহলি হাসপাতালে ইসরায়েলি হামলা ২০০৮ সাল থেকে সংঘটিত পাঁচটি যুদ্ধের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ ইসরায়েলি বিমান হামলা।

অবরুদ্ধ গাজায় ইসরায়েলি বাহিনী বাসিন্দাদের গাজা সিটি সহ উত্তরাঞ্চল থেকে দক্ষিণে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়ায় হাসপাতালগুলো শরণার্থী শিবির হয়ে উঠেছে। বাসিন্দারা এই বিশ্বাসে হাসপাতালে আশ্রয় নিয়েছিলেন যে, হয়তো হাসপাতালে ইসরায়েলি হামলা হবে না।

ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস আল-আহলি হাসপাতালে বোমা হামলার ঘটনায় তিন দিনের শোক ঘোষণা করেছেন বলে জানিয়েছে ফিলিস্তিনি বার্তাসংস্থা ওয়াফা। ইসরায়েলি হামলার ঘটনায় বেশ কয়েকটি রাজনৈতিক উপদল পশ্চিম তীরে বুধবার ফিলিস্তিনিদের প্রতি বাণিজ্যিক ধর্মঘট পালনের আহ্বান জানিয়েছে।

হাসপাতালটি ছাড়াও জাতিসংঘ পরিচালিত একটি স্কুলেও হামলা হয়েছে। এতে ছয়জনের প্রাণ গেছে। স্কুলটি যুদ্ধে বাস্তুচ্যুতদের আশ্রয়স্থল ছিল।

হাসপাতালে হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে জাতিসংঘ। মিশর, তুরস্ক ও কাতারও এই হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে।

Advertisement
Share.

Leave A Reply