fbpx

ঘূর্ণিঝড়ের কারণে সারাদেশে বন্ধ থাকবে নৌযান

Pinterest LinkedIn Tumblr +

দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরগুলোতে সব ধরনের যাত্রীবাহী নৌযান চলাচল বন্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)। ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’ এর কারণে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে তারা।

আজ মঙ্গলবার (২৫ মে) এ তথ্য সংবাদমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম খান। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নৌযান চলাচল বন্ধ থাকবে বলে জানানো হয়েছে বিআইডব্লিউটিএ’র পক্ষ থেকে।

এদিকে, বিআইডব্লিউটি’র উপ পরিচালক মিজানুর রহমান সংবাদমাধ্যমকে জানান, দুই নম্বর সতর্ক সংকেত দেওয়া হয়েছে। এই সংকেতে ৬৫ ফুটের বড় নৌযান চলাচল করতে পারে। কিন্তু, বাড়তি সতর্কতা এবং কোনো ধরনের প্রাণহানি যেন না ঘটে, সেজন্য এই ঘোষণা।

জানা গেছে, ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’ ঘণ্টায় ২১ কিলোমিটার গতিবেগ বাড়িয়ে এগিয়ে যাচ্ছে ভারতের ওড়িশা-পশ্চিমবঙ্গ উপকূলের দিকে। যা আজ মঙ্গলবার বিকেলের মধ্যে তা সুপার সাইক্লোনে পরিণত হওয়ার কথা রয়েছে। এ সময় বাতাসের গতি ঘণ্টায় ১৬৫ থেকে ১৯০ কিলোমিটার পর্যন্ত বাড়ার কথা বলা হয়েছে। আর আগামীকাল বুধবার সকালে ভারতের ওড়িশা-পশ্চিমবঙ্গ উপকূলে এটি আঘাত হানতে পারে।

আবহাওয়াবিদদের পূর্বাভাস অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত ঝড়ের যে গতিপথ, তাতে বাংলাদেশে তা সরাসরি আঘাত করবে না। তবে, এরইমধ্যে এর প্রভাবে খুলনা, সাতক্ষীরা, পটুয়াখালী, নোয়াখালী এলাকার নিচু এলাকা এবং চরাঞ্চলগুলোতে জোয়ারের পানি প্রবেশ করেছে এবং পাশাপাশি ঝোড়ো বাতাসও বয়ে যাচ্ছে। ডুবে গেছে সুন্দরবনের দুবলার চরসহ জেলে পল্লিগুলোর বেশির ভাগ এলাকা। এমনকি, অনেক স্থানে বেড়িবাঁধ টপকেও জোয়ারের পানি প্রবেশ করছে।

করোনামহামারীর প্রভাবে দীর্ঘ সাত মাস টানা যাত্রীবাহী লঞ্চ চলাচল বন্ধ থাকার পর মাত্র একদিন আগেই লঞ্চ চলাচল আবারও শুরু হয়েছিল। আর আজ, ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’ এর কারণে আবারও অনির্দিষ্টকালের জন্য তা বন্ধ করে দেওয়া হলো।

Share.

Leave A Reply