fbpx

‘জনগণ দায়িত্বশীল ও সচেতন হলে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব’

Pinterest LinkedIn Tumblr +
Advertisement

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেছেন জনগণ সচেতন হলে এবং দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করলে ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব হবে।

বুধবার (১২ জুলাই) পশ্চিম ধানমন্ডির মধুবাজার জামে মসজিদ সংলগ্ন এলাকায় মশক নিধন কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে গণমাধ্যমকে তিনি এ কথা বলেন।

মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেছেন, একটি মশার উৎসই পুরো এলাকার জনস্বাস্থ্যের জন্য হুমকি তৈরি করতে পারে। একটি পাত্রে জমে থাকা পানির ভেতর প্রচুর পরিমাণে লার্ভা ও মশা জন্মানো সম্ভব। সুতরাং প্রথমত আমাদের দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে। পানি জমে লার্ভা বিস্তারের সুযোগ তৈরি হয় এরকম কোথাও কোনো পরিত্যক্ত পাত্র বা সামগ্রী রাখা যাবে না। নিজেদের আঙিনা, নিজেদের স্থান, নিজেদের স্থাপনা আমরা যদি পরিষ্কার রাখতে পারি তাহলে আমরা অবশ্যই এডিস মশা এবং ডেঙ্গুকে প্রতিরোধ করতে পারব। শতভাগ নির্মূল করতে পারব এটা আমরা বলছি না, কিন্তু জনগণ সচেতন হলে আমরা এটা নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারব।

তিনি বলেন, যে বিষয়টি আমাদের সবচেয়ে বেশি ভোগাচ্ছে সেটি হলো এডিস মশার বিস্তার। মশার বিস্তার রোধে এ মৌসুমে আমাদের চলমান অভিযানের কার্যক্রম আজ (বুধবার) আমি নিজেই সশরীরে তদারকি করছি। আজ মধুবাজার এলাকায় আমাদের কর্মী ও কর্মকর্তারা ২৬টি ভবন পরিদর্শন করেছেন। সচেতন করার জন্য আমরা কথা বলেছি এবং আমরা তা ধ্বংস ও নির্মূল করেছি। এছাড়াও লার্ভিসাইডিং করছি এবং বিকেলে আবার ফগিং করা হচ্ছে। যাতে করে উন্মুক্ত স্থানে থাকা মশাগুলো নিধন করা যেতে পারে। এভাবেই ডিএসসিসি এলাকার ৭৫টি ওয়ার্ডে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে আমরা চিরুনি অভিযান পরিচালনা করছি। আমাদের ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হচ্ছে। এ পর্যন্ত (গত ১৮ জুন হতে গত ১১ জুলাই পর্যন্ত) ২ হাজার ১৩৩টি স্থাপনা, হোল্ডিং ও বাসা-বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। যেসব স্থানে বড় বড় ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান, বিদ্যালয় ও স্থাপনা রয়েছে, তাদের স্ব স্ব কর্তৃপক্ষ দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করলে আমরা সবাই মিলে ডেঙ্গু পরিস্থিতি প্রতিরোধ করতে পারব।

 

Advertisement
Share.

Leave A Reply