fbpx

জনসনের টিকার আবারও অনুমোদন যুক্তরাষ্ট্রে

Pinterest LinkedIn Tumblr +

টানা ১১ দিন স্থগিত রাখার পর জনসন অ্যান্ড জনসনের (জেঅ্যান্ডজে) টিকার ব্যবহার যুক্তরাষ্ট্রে আবারও শুরু করার অনুমতি দিয়েছে সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (সিডিসি)।

গতকাল শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) দেশটির স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রক সংস্থা এ কথা জানায়।

এর আগে, গত ১৪ এপ্রিল রক্ত জমাট বাঁধার কারণে জেঅ্যান্ডজে’র টিকা ব্যবহার স্থগিত করেছিল মার্কিন স্বাস্থ্য সংস্থা। একই কারণে, ইউরোপেও এই টিকার প্রয়োগ বন্ধ রাখা হয়েছিল, যা এই সপ্তাহে প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্র (সিডিসি) এবং খাদ্য ও ঔষধ প্রশাসনের প্রধান জ্যানেট উডকক এক যৌথ বিবৃতিতে বলেছেন, তারা সিদ্ধান্তে এসেছে, ১৮ কিংবা তারচেয়ে বেশি বয়সীদের ক্ষেত্রে জনসনের টিকার সম্ভাব্য ঝুঁকির চেয়ে এর উপকারিতা বেশি।

সিডিসি’র প্রধান রোশেলে ওয়ালেনস্কি বলেছেন, রক্তে জমাট বাঁধার এই ব্যতিক্রমী ও বিরল বিষয়টি শনাক্ত করা গেছে। বিষয়টি স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রক সংস্থা অব্যাহতভাবে মনিটর করে যাচ্ছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে, শুক্রবার প্রকাশিত সিডিসি’র এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ফেব্রুয়ারিতে জেঅ্যান্ডজে’র টিকা অনুমোদন পাওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় ৮০ লাখ মানুষকে এই টিকা দেওয়া হয়। এর মধ্যে নারী রয়েছেন ৩৯ লাখ। তাদের মধ্যে ১৫ জনের শরীরে রক্তে জমাট বাঁধার সমস্যা দেখা দিয়েছে। এদের সবাই নারী এবং বেশিরভাগের বয়স ৫০ বছরের কম। তিন জন মারা গেছেন এবং সাত জন এখনও হাসপাতালে ভর্তি আছেন। তবে, এ ধরনের কোন সমস্যার কথা পুরুষদের মধ্যে শোনা যায়নি বলেও বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

সিডিসি তার পরামর্শক প্যানেলের সুপারিশ বাস্তবায়ন করে জেঅ্যান্ডজে’র টিকার ব্যবহার আবার শুরু করার অনুমতি দেওয়ায় জেঅ্যান্ডজে’র নেদারল্যান্ডসের কারখানা থেকে আনা এক কোটি ডোজ টিকা তাৎক্ষণিকভাবে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন প্রান্তে প্রয়োগ করার কাজ শুরু করা হবে।

এদিকে, ইউরোপের ঔষধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) বলেছে, রক্তে জমাট বাঁধার এ সমস্যাকে জেঅ্যান্ডজে’র টিকার খুবই ব্যতিক্রমী পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হিসেবে তালিকাভুক্ত করা উচিত।

Share.

Leave A Reply