fbpx
BBS_AD_BBSBAN
৫ই ডিসেম্বর ২০২২ | ২০শে অগ্রহায়ণ ১৪২৯ | পরীক্ষামূলক প্রকাশনা

জানুয়ারি থেকে বাংলাদেশে করোনার ভ্যাকসিন

Pinterest LinkedIn Tumblr +
Advertisement

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানিয়েছেন, আগামী জানুয়ারির যেকোনো সময় যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি করোনাভাইরাসের টিকা বাংলাদেশে আসবে।

আজ রবিবার (১৩ ডিসেম্বর) করোনার টিকার ক্রয়চুক্তি স্বাক্ষরের অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এসব তথ্য জানান।

তিনি জানান, অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা উদ্ভাবিত করোনাভাইরাসের ৩ কোটি ডোজ টিকা কেনার জন্য ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউটের সাথে ক্রয়চুক্তি হয়েছে। এই চুক্তি অনুযায়ী আগামী জানুয়ারি থেকে শুরু করে পরবর্তী ছয় মাসে ৫০ লাখ করে মোট ৩ কোটি ভ্যাকসিন পাবে বাংলাদেশ।

তারমধ্যে, প্রথম ধাপের ৫০ লাখ টিকা জানুয়ারিতে আসবে। এরপর প্রতি ধাপে ধাপে ৫০ লাখ করে টিকা আসবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও জানান, সিরাম ইনস্টিটিউটের কাছে টিকার ক্রয় সংক্রান্ত কাগজপত্র সই করে পাঠানো হয়েছে। আশা করা যাচ্ছে, ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে সিরাম ইনস্টিটিউট কাগজগুলো পেয়ে যাবে এবং জানুয়ারি নাগাদ বাংলাদেশে ভ্যাকসিন পৌঁছে যাবে। তবে তার আগে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদনের পাশাপাশি দেশের ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের অনুমোদনের বিষয়ও আছে। শিগগিরি এ অনুমোদন পেয়ে যাবার আশা প্রকাশ করেন তিনি।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলমসহ আরও উপস্থিত ছিলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা ও অধ্যাপক মীরজাদী সেব্রিনা, বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল হাসান।

এর আগে, অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনাভাইরাসের টিকা কিনতে সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া এবং বাংলাদেশের বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের সঙ্গে গত ৫ নভেম্বর সমঝোতা চুক্তি করে সরকার। আর তারপরই আজ রবিবার  সরকার এই ক্রয় চুক্তি করল।

এই টিকা প্রতিটি মানুষকে দুই ডোজ করে নিতে হবে। অর্থাৎ এই তিন কোটি টিকা দেয়া যাবে শুধুমাত্র দেড় কোটি মানুষকে। বাংলাদেশে করোনার টিকার প্রতিটি ডোজের দাম পড়বে ৪২৫ টাকা, অর্থাৎ ৫ ডলার করে। আর সরকারের এই টিকা কেনার জন্য বরাদ্দ রয়েছে ৭৩৫ কোটি ৭৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা। যদিও জনসাধারনকে বিনামূল্যে টিকা দেয়া হবে।

Advertisement
Share.

Leave A Reply