fbpx

ডিম চেয়ে না পেয়ে প্রযোজকের ঝগড়া, থানায় জিডি করলেন ওমর সানি

Pinterest LinkedIn Tumblr +

থানায় জিডি করেছেন চিত্রনায়ক ওমর সানী। তার অভিযোগ, প্রযোজক ইকবাল হোসেন তাকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছেন।

গতরাতে নাশতা নিয়ে ফিল্ম ক্লাবের কর্মচারীর সঙ্গে অপ্রীতিকর ঘটনা শুরু করেন প্রযোজক ইকবাল হোসেন। তিনি নায়ক ওমর সানীকে প্রাণনাশের হুমকি দেন। এই ঘটনায় শঙ্কিত হয়ে ওমর সানী প্রত্যক্ষদর্শীদের স্বাক্ষর নিয়ে গুলশান থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন।

তবে ইকবালের দাবি, তার নামে মিথ্যা অভিযোগ এনে জিডি করেছেন ওমর সানী।

বিবিএস বাংলাকে ওমর সানী জানান, তখন রাত পৌনে ১০টার দিকে ক্লাবের কয়েকজনকে নিয়ে একটি রুমে বসে ছিলেন তিনি। তাঁর সঙ্গে ছিলেন ফিল্ম ক্লাবের সাবেক দুই প্রেসিডেন্ট ও কেবিনেটের সদস্যরা। এমন সময় প্রযোজক ইকবাল ক্লাবে এসে খাবার চেয়ে না পাওয়ায় ক্ষুব্ধ হন। ইকবাল দুইটা ডিম চান। ক্লাবের কর্মচারী ডিমের টাকা চান। টাকা চাওয়ায় ইকবাল ছেলেটির ওপর রেগে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকেন। পরে প্রযোজক ঢালিউডের এক সময়ের জনপ্রিয় এই নায়কের প্রাণনাশের হুমকি দেন।

ওমর সানী আরও বলেন, ‘সেই ছেলেটিকে আমি তখনই বলি, তুমি সঙ্গে সঙ্গে টাকা চাইলা কেন? তিনি একজন সম্মানিত সাবেক সেক্রেটারি। তখন সে (ইকবাল) আমাকে বলে, ‘এরা তোর ইশারায় চলে।’ একপর্যায়ে সে আমার  মাকে তুলে যা তা বলে গালিগালাজ করেন। আমি তাকে কিছু বলি নাই। তখন ক্লাবে থাকা সবাই উপস্থিত ছিলেন। সে কাঁটাচামচ নিয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে আঘাত করার চেষ্টা করেছেন। এই জন্য বাধ্য হয়ে আমি রাতেই জিডি করেছি।’

জানা যায়, রাত ১১টার সময় মিটিং ডেকে তারা ফিল্ম ক্লাবের সম্মিলিত সিদ্ধান্তে ইকবালকে প্রাথমিকভাবে ছয় মাসের জন্য তার সদস্যপদ স্থগিত করা হয়েছে।

ফিল্ম ক্লাবের সাবেক সেক্রেটারি ও প্রযোজক ইকবাল দাবি করেন, অনেক দিন ধরে ফিল্ম ক্লাবে জুয়াসহ বেশ কিছু অনৈতিক কাজ হচ্ছিল। যেখানে বেশির ভাগই বাইরের মানুষ এসে যোগ দেয়। এ জন্য আলাদা একটি রুমও ভাড়া দেওয়া হয়েছে। এগুলোর প্রতিবাদ করায় তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হচ্ছে।

তবে ওমর সানী বিবিএস বাংলাকে বলেন, ‘এই কথা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। আমার আগেও ইকবাল জাজ এর চেয়ারম্যান আব্দুল আজিজকেও বিভিন্ন হুমকি দেন, বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন। আপনারা দরকার হলে ক্লাবের সাবেক সদস্য অমিত হাসানের সাথেও কথা বলতে পারেন এ ব্যাপারে। আপনাদের সত্য তুলে আনা উচিত।’

Share.

Leave A Reply