fbpx

দুইয়ে দুই লঙ্কানদের

Pinterest LinkedIn Tumblr +

নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে আয়ারল্যান্ডকে ৭০ রানে হারিয়ে টানা দুই ম্যাচেই জয় নিয়ে মাঠ ছাড়লো শ্রীলঙ্কা। সেইসাথে সুপার-১২টাও অনেকটা নিশ্চিত করে নিল লঙ্কানরা।

টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে প্রথম দশ বলেই নেই তিন উইকেট; একে একে ফিরে গেছেন কুশল পেরেরা, দীনেশ চান্ডিমাল এবং আভিশকা ফার্নান্দো। টপঅর্ডারের তিন ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে বিপাকে শ্রীলঙ্কা। সেখান থেকেই দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ের শুরু পাথুম নিশানকা-ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গার। পাওয়ারপ্লের শেষ ওভারটাতে সর্বশেষ চার বলে সিমি সিংকে হাসারাঙ্গার চার বাউন্ডারি হাঁকিয়ে শুরু; তারপর দুজনেই তুলে নিয়েছেন অর্ধশতক। চতুর্থ উইকেট জুটিতে যোগ করেছেন ১২৩ রান।

দু’জনে মিলে গড়েছেন ১২৩ রানের জুটি।

দু’জনে যেভাবে ব্যাটিং করছিলেন তাতে একটা সময়ে মনে হচ্ছিল ভেঙ্গে দেবেন ২০১০ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে করা মাহেলা জয়াবর্ধনে-কুমার সাঙ্গাকারার ১৬৬ রানের জুটির রেকর্ডটাও। মার্ক অ্যাডেইরের স্লোয়ার বলটাতে হাসারাঙ্গা ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে ক্যাচ তুলে না দিলে, জুটিটা বড় হতে পারত আরও। প্যাভিলিয়নে ফিরার আগে হাসারাঙ্গার ব্যাট থেকে এসেছে ৭১ রান।

নিসানকার ব্যাট থেকে এসেছে ৬১।

হাসারাঙ্গা ফিরে গেলেও শ্রীলঙ্কার ইনিংসটাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার কাজটা ভালোভাবেই করছিলেন নিশানকা। একপ্রান্ত থেকে উইকেটের পতন হতে থাকলেও লঙ্কান ওপেনার খেলে যাচ্ছিলেন স্বাচ্ছন্দ্যেই। কিন্তু ব্যক্তিগত ৬১ রানেই লিটলের বলে উইকেট কিপারের হাতে ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরেছেন তিনিও। মাত্র আট রানেই তিন উইকেট হারানো শ্রীলঙ্কা নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে স্কোরবোর্ডে তুলেছে ১৭১ রান। শেষদিকে ১১ বলে ২১* রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেছেন অধিনায়ক দাসুন শানাকা। আইরিশদের হয়ে জশ লিটল নিয়েছেন ২৩ রানে ৪টি উইকেট।

তীকসানা নিয়েছেন ৩ উইকেট।

১৭২ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে প্রথম তিন ওভারেই আয়ারল্যান্ডের নেই দুই উইকেট; পাওয়ারপ্লে শেষ হতে হতেই উইকেটের পতন হয়েছে আরো একটি। শুরুর বিপর্যয় কার্টিস ক্যামফারকে নিয়ে কাটিয়ে ওঠার চেষ্টায় অধিনায়ক অ্যান্ডি বালবার্নি; কিন্তু ব্যক্তিগত ২৪ রানেই প্যাভিলিয়নে ফিরেছেন আগের ম্যাচেই বল হাতে হ্যাটট্রিক তুলে নেয়া ক্যামফার। চতুর্থ উইকেট জুটিতে দুজনের ব্যাট থেকে এসেছে ৫৩ রান।

এরপর আর ম্যাচে ঘুরে দাড়াতে পারেনি আইরিশরা। শেষ ভরসা হয়ে থাকা অধিনায়ক বালবার্নিও প্যাভিলিয়নে ফিরে যান ৪১ রান করেই। আয়ারল্যান্ডও গুটিয়ে যায় ১০১ রানেই। লঙ্কানদের হয়ে মহেশ তীকসানা নিয়েছেন তিনটি উইকেট।

Share.

Leave A Reply