fbpx

দেশের মানুষ নির্বাচনে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছে: জি এম কাদের

Pinterest LinkedIn Tumblr +

দেশের মানুষ নির্বাচনের প্রতি বিমুখ হয়ে পড়েছে বলে অভিযোগ করেছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের। বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) দলের চেয়ারম্যান কার্যালয়ে এক মতবিনিময় সভায় একথা বলেন তিনি।

জি এম কাদের বলেন, ‘নির্বাচনে দেশের মানুষ আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছে। দেশের মানুষ নির্বাচনের প্রতি বিমুখ হয়ে পড়েছে। নির্বাচনে সরকার সমর্থিত প্রার্থীদের চাপে বিরোধী শিবিরের প্রার্থীরা নির্বাচনের মাঠে টিকতেই পারছে না। টাকা ও পেশি শক্তির প্রভাবে দিশেহারা হয়ে নির্বাচনের মাঠ ছাড়তে বাধ্য হচ্ছেন অনেক প্রার্থী।‘

তিনি বলেন, ‘জাতীয় পার্টির মনোনয়ন নিয়ে নির্বাচনের মাঠে শেষ পর্যন্ত লড়তে হবে। যারা মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচনের মাঠে লড়াই করতে পারবে না, তাদের স্থান জাতীয় পার্টিতে হবে না। ভোট হচ্ছে অধিকার। তাই ভোটাধিকার নিশ্চিতে লড়াই করতে হবে। দেশের মানুষ তাদেরই পছন্দ করে যারা শেষ পর্যন্ত লড়াই করতে পারে। যারা নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ায় তারা দেশের মানুষের কাছে ঘৃনিত মানুষ হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকে।‘

ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সমালোচনা করে কাদের বলেন, ‘দীর্ঘদিন রাষ্ট্র ক্ষমতায় থেকে আওয়ামী লীগ রাজনীতিতে নেই বললেই চলে। ক্ষমতার দ্বন্দ্বে নানা গলদ আছে আওয়ামী লীগে।‘

বিএনপির সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘বিএনপি নেত্রী মুচলেকা দিয়ে কারাগার থেকে বের হয়ে কোন কথাই বলতে পারছেন না। বিএনপিতে নেতৃত্ব নিয়েও সংকট রয়েছে। রাজনীতির মাঠে দাঁড়াতে পারছেনা বিএনপি। কিন্তু এমন বাস্তবতায় জাতীয় পার্টি উজ্জ্বল ভবিষ্যত নিয়ে রাজনীতির মাঠে আছে। ২১ বছর রাষ্ট্র ক্ষমতার বাইরে গিয়ে আওয়ামী লীগের ভবিষ্যত অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিলো। বিএনপি এক যুগের বেশি সময় ক্ষমতার বাইরে থেকে রাজনীতিতে দিশেহারা হয়ে পড়েছে।‘

জনগণ রাষ্ট্র ক্ষমতায় জাতীয় পার্টিকে দেখতে চায় উল্লেখ করে জি এম কাদের বলেন, ‘দীর্ঘ ৩১ বছর রাষ্ট্র ক্ষমতার বাইরে থেকেও জাতীয় পার্টি রাজনীতির মাঠে লড়াই করছে। কারন, জাতীয় পার্টি দেশের মানুষের আস্থা আর ভালোবাসা নিয়ে রাজনীতি করে। দেশের মানুষ বলছে, জাতীয় পার্টির শাসনামলেই দেশের মানুষ ভালো ছিলেন। জাতীয় পার্টির আমলে দেশের মানুষের জান-মাল ও অধিকারের নিশ্চয়তা ছিলো। জাতীয় পার্টির আমলেই দেশে আইনের শাসন ছিলো। তাই দেশের মানুষ আগামী দিনে জাতীয় পার্টিকে রাষ্ট্র ক্ষমতায় দেখতে চায়।’

Share.

Leave A Reply