fbpx
BBS_AD_BBSBAN
৩০শে নভেম্বর ২০২২ | ১৫ই অগ্রহায়ণ ১৪২৯ | পরীক্ষামূলক প্রকাশনা

নির্ধারিত দামে বিক্রি হচ্ছে না ভোজ্যতেল,চড়া দাম ঢেঁড়স-পটলের

Pinterest LinkedIn Tumblr +
Advertisement

দেশের বাজারে সরকার ভোজ্যতেলের দাম নির্ধারণ করে দিলেও সেই দামে বিক্রি হচ্ছে না সয়াবিন ও পাম তেল। নির্ধারিত দাম অনুযায়ী, প্রতি লিটার সয়াবিনের (খোলা) খুচরা মূল্য ১১৫ টাকা। বোতলের প্রতি লিটার সয়াবিনের খুচরা মূল্য ১৩৫ টাকা। বোতলের ৫ লিটারের মূল্য ৬২৫ টাকা। আর পাম সুপারের প্রতি লিটারের মূল্য ১০৪ টাকা।

শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে এমন চিত্রই দেখা গেছে।

দেখা গেছে, খুচরা পর্যায়ে খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ১৩৫ টাকায়। আর পাম সুপার বিক্রি হচ্ছে ১২৫ টাকায়। এছাড়া বোতলের ৫ লিটার সয়াবিন ৬৬০ টাকার ওপরে বিক্রি হচ্ছে। আর বোতলের এক লিটার পাওয়া যাচ্ছে ১৩৫-১৪০ টাকায়।

এদিকে শীতের সবজির পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকলেও রাজধানীর বাজারগুলোতে পটল ও ঢেঁড়স উচ্চদামে বিক্রি হচ্ছে। বেশিরভাগ সবজি যেখানে ২০-৩০ টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে, সেখানে পটল ও ঢেঁড়সের কেজি বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকার ওপরে।

রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, পটল ও ঢেঁড়শের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ১২০ টাকায়। তবে আগের মতোই বাকি সবজি পাওয়া যাচ্ছে। পাকা টমেটোর কেজি ২০ থেকে ৩০ টাকা, শসার কেজি ২০ থেকে ৩০ টাকার মধ্যে, শিমের কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ৪০ টাকায়।

এছাড়া মুলা ২০ থেকে ২৫ টাকা, বেগুন ২০ থেকে ৩০ টাকা, পেঁপে ৩০ থেকে ৩৫ টাকা, গাজর ১৫ থেকে ২৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। আর ফুলকপি, বাঁধাকপি ও লাউ আগের দামেই বিক্রি হচ্ছে। ফুলকপি ও বাঁধাকপির পিস বিক্রি হচ্ছে ১৫ থেকে ২০ টাকা এবং লাউ বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৬০ টাকা পিস।

পেঁয়াজ, আলু, ডিম ও ব্রয়লার মুরগির দামও অপরিবর্তিত রয়েছে। খুচরা পর্যায়ে পেঁয়াজ ৩০ টাকা, আলু ১৫ টাকা কেজিতে পাওয়া যাচ্ছে। আর ডিম ডজন প্রতি পাওয়া যাচ্ছে ৯৫ টাকায়। এবং বয়লার মুরগির কেজি বিক্রি হচ্ছে ১৪০-১৪৫ টাকা।

Advertisement
Share.

Leave A Reply