fbpx

পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে বরাদ্দ বেশি, সড়কপথের উন্নয়নে ৪৫২টি নতুন প্রকল্প

Pinterest LinkedIn Tumblr +

জাতীয় সংসদে ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেট পেশ করছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। ‘জীবন-জীবিকায় প্রাধান্য দিয়ে সুদৃঢ় আগামীর পথে বাংলাদেশ’ শিরোনামে তিনি ছয় লাখ কোটি টাকার বিশাল বাজেটে পেশ করেন।

এই বাজেটে দেশের উন্নয়ন খাতে ২ লাখ ৩৭ হাজার ৭৮ কোটি খরচ করার প্রস্তাব করা হয়। এবারও পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে সবচেয়ে বেশি পরিমাণ অর্থ ব্যয়ের প্রস্তাব দেন অর্থমন্ত্রী।

এই খাতে উন্নয়ন ব্যয়ের ২৫ দশমিক ৮ শতাংশ ব্যয় করা হবে। আর এই খাতের বরাদ্দকৃত অন্যান্য খাতগুলোর মধ্যে শিক্ষা ও প্রযুক্তি খাত (১৯ দশমিক ৭ শতাংশ), স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন (১৫ দশমিক ১ শতাংশ), জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাত (১১ দশমিক ৫ শতাংশ), স্বাস্থ্যে (৬ দশমিক ৬ শতাংশ) , জনপ্রশাসন (৬  দশমিক ৪) , কৃষিতে (৫ দশমিক ৬ শতাংশ), সামাজিক নিরাপত্তায় (৩ শতাংশ) ও অন্যান্য খাতে (৬ দশমিক ৩ শতাংশ) বরাদ্দের প্রস্তাব দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী।

উন্নয়ন বাজেটে এবারও সর্বোচ্চ বরাদ্দের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে। আগামী  অর্থবছর পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে ৬১ হাজার ১৭০ কোটি টাকা ব্যয় করার প্রস্তাবনা দেওয়া হয়। আর পরিবহন ও যোগাযোগ খাতের জন্য চলতি অর্থবছরের সংশোধিত বাজেট ধরা হয়েছে ৫০ হাজার ৪৪১ কোটি টাকা।

প্রস্তাবিত মোট বাজেটের (পরিচালন ও উন্নয়ন মিলিয়ে) পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে ১১ দশমিক ৯ শতাংশ বরাদ্দ করার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। যেখানে চলতি অর্থবছর বাজেটের ১১ দশমিক ২ শতাংশ এই খাতে বরাদ্দ ছিল। সে হিসেবে বরাদ্দ বেড়েছে দশমিক সাত শতাংশ।

অর্থমন্ত্রী ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগে ২৮ হাজার ৪২ কোটি টাকা, রেলপথ মন্ত্রণালয়ে ১৩ হাজার ৫৫৮ কোটি টাকা, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ে ৪ হাজার ৩৫৪ কোটি টাকা, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ে ৩ হাজার ৯৮৩ কোটি টাকা, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগে ১ হাজার ৪২০ কোটি টাকা এবং সেতু বিভাগে ৯ হাজার ৮১৩ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করেছেন।

এদিকে বাজেট উত্থাপনের সময় দেশে সড়কপথের উন্নয়নে ৪৫২টি নতুন প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

অর্থমন্ত্রী বলেন, একটি আধুনিক ও টেকসই মহাসড়ক সংযোগ গড়ে তোলার জন্য সরকার কাজ করে যাচ্ছে। একই সাথে সড়ক নিরাপত্তা বৃদ্ধি, ঢাকা মহানগরীতে যানজট নিরসণে দ্রুতগতির গণপরিবহন ব্যবস্থা (এমআরটি ও বিআরটি) প্রবর্তনসহ মোটরযান ব্যবস্থাপনার আধুনিকায়নে পরিকল্পনা গ্রহণসহ বাস্তবায়ন কার্যক্রম চলমান।

সংসদে আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, গত ১২ বছরে সরকার সড়কপথের উন্নয়নে ৩৩১টি প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে। এর মধ্যে ৪৫৩ দশমিক ৭ কিলোমিটার জাতীয় মহাসড়ক চার এবং তদূর্ধ্ব লেনে উন্নীত করা হয়েছে। বাংলাদেশের প্রথম ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ে এবং চার লেন বিশিষ্ট ঢাকা-চট্টগ্রাম জাতীয় মহাসড়ক, ঢাকা-ময়মনসিংহ জাতীয় মহাসড়ক ও নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়ক উল্লেখযোগ্য। বর্তমানে এলেঙ্গা-হাটিকুমরুল-রংপুর মহাসড়ক, ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক ইত্যাদি চার লেনে উন্নীত করার কাজ এগিয়ে চলছে।

Share.

Leave A Reply