fbpx

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সর্বোচ্চ সতর্ক ছিল আইনশৃঙ্খলা বাহিনী : পুলিশ

Pinterest LinkedIn Tumblr +

সর্বোচ্চ সতর্ক থাকার পরেও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি করেছে পুলিশ। বুধবার (২০ অক্টোবর) পুলিশ সদর দপ্তর থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ‘পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সর্বোচ্চ সতর্কতা এবং প্রচেষ্টা সত্ত্বেও দেশের বিভিন্ন স্থানে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে।‘

গণমাধ্যমকে পাঠানো ওই বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ‘কুমিল্লার ঘটনাকে কেন্দ্র করে যাতে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি না ঘটে, সেজন্য সারাদেশে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে, পুলিশ টহল জোরদার করা হয়েছে এবং গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করা হয়েছে।‘

পরিস্থিতি উন্নয়নে সাধারণ মানুষের সহযোগিতা চেয়ে পুলিশ জানায়, ‘যে কোনো বিভ্রান্তিকর তথ্য অথবা গুজব কিংবা উস্কানিতে বিভ্রান্ত বা উত্তেজিত না হয়ে তাৎক্ষণিকভাবে নিকটস্থ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে অবহিত করা এবং পরিস্থিতির উন্নয়নে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সহায়তা করার জন্য সকলের প্রতি বিশেষ অনুরোধ জানানো হচ্ছে।‘

এখন পর্যন্ত ৭২টি মামলা হয়েছে উল্লেখ করে পুলিশের বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘সাম্প্রদায়িক সহিংসতার ঘটনায় এখন পর্যন্ত সারাদেশে মোট ৭২টি মামলা হয়েছে এবং ঘটনার সঙ্গে জড়িত ৪৫০জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আরও মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন রয়েছে এবং দুষ্কৃতিকারীদের গ্রেপ্তার অভিযান অব্যাহত আছে।‘

সহিংসতার বিষয়ে বিবৃতিতে জানানো হয়, ‘কুমিল্লা, চাঁদপুর, নোয়াখালী, ফেনী, রংপুর ছাড়াও কক্সবাজারের পেকুয়া ও চকরিয়া, সিলেটের জকিগঞ্জ, মৌলভীবাজারের কুলাউড়া ও কমলগঞ্জ, হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ ও গাজীপুরের কাশিমপুরে হামলা-ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এসব সহিংসতায় মোট সাতজন নিহত হয়েছে। এদের মধ্যে পাঁচজন হাজীগঞ্জের এবং দুজন নোয়াখালীর। পাঁচজন মুসলমান ও দু’জন হিন্দু রয়েছে।‘

Share.

Leave A Reply