fbpx

প্রত্যাশিত জয়ে পাকিস্তানের চারে চার!

Pinterest LinkedIn Tumblr +

টানা চার ম্যাচে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়লো বাবর আজমের দল। বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে দশ উইকেটের জয়ে উড়ন্ত সূচনা করা পাকিস্তান সময়ের সাথে সাথে এখন এবারের বিশ্বকাপ ট্রফি জয়ের অন্যতম দাবিদার। নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে নামিবিয়াকে ৪৫ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে মেন ইন গ্রিনরা।

মুদ্রার এপিঠ-ওপিঠ দুটোই দেখেছে নামিবিয়া। দুর্দান্ত শুরু করেও থামাতে পারেনি পাকিস্তানি ব্যাটসম্যানদের। প্রথম ৬ ওভারে ২৯ রান করা পাকিস্তান শেষ ৬ ওভারে তুলেছে ৮২ রান! আবুধাবির এই পিচে শুরুতে ২৮ বলে ২২ রান করা মোহাম্মদ রিজওয়ান নিজের ইনিংস শেষে করেছেন ৫০ বলে ৭৯ রানে অপরাজিত থেকে। আর মাত্র চার রান করে ফেললেই ছুঁয়ে ফেলতেন টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এক বছরে ক্রিস গেইলের করা ১৬৬৫ রানের রেকর্ডটাই।

৭৯ রানে অপরাজিত ছিলেন রিজওয়ান।

বাবর আজমের অর্ধশতকে শুরুতে স্বস্তি ফিরে পেলেও মেন ইন গ্রিনদের রানটা ১৮৯-এ পৌঁছতে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রেখেছে শেষদিকে হাফিজ-রিজওয়ানের ২৬ বলে ৬৭ রানের তৃতীয় উইকেট জুটি। হাফিজ খেলেছেন ১৬ বলে ৩২ রানের ঝড়ো ইনিংস। শেষ ওভারে স্কোরবোর্ডে ২৪ রান তুলেছেন মোহাম্মদ রিজওয়ান।

দু’জনে মিলে গড়েছেন ১১৩ রানের জুটি।

বোলিংয়ে নিজের প্রথম ওভারেই মেইডেন দেওয়া রুবেন ট্রাম্পেলমান চার ওভারে দিয়েছেন ৩৬, ডেভিড উইজা ৩০ রানে নিয়েছেন ১ উইকেট। সময়ের সাথে সাথে ভয়ংকর হয়ে উঠেছেন রিজওয়ান-হাফিজরা। আর, সেটা যে খুব ভালো চাপ সৃষ্টি করেছে নামিবিয়া দলের ওপর, সেটা অনুমান করা যায় তাদের বেশকিছু ফিল্ডিং এবং ক্যাচ মিসের দৃশ্য দেখেই।

পাকিস্তান ট্রফি জিতবে স্বপ্ন দেখছে ভক্ত-সমর্থকেরাও।

জয়ের জন্য ১৯০ রানের লক্ষ্যটা যে অনেক বড়, বিশেষ করে পাকিস্তান বোলিং লাইনআপের বিপক্ষে সেটা বুঝতে বাকি নেই নামিবিয়ার; এমনকি ভক্ত-সমর্থকদেরও। প্রথম ইনিংস শেষেই তাই চোখ মুখজুড়ে হতাশার ছাপ; ব্যাটিংয়েও দেখা মেলেছে আক্ষেপে জ্বলে পুড়ে যাওয়ার দৃশ্য! পারেনি নামিবিয়া, হেরেছে ৪৫ রানে। নির্ধারিত ২০ ওভারে করেছে ৫ উইকেটে ১৪৪ রান। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৩* রান করেছেন ডেভিড উইজা; ক্রেগ উইলিয়ামসের সংগ্রহ ৪০। ২২ রানে ১টি উইকেট নিয়েছেন হাসান আলী।

Share.

Leave A Reply