fbpx

প্রিয়জনদের কাঁদিয়ে চিরনিদ্রায় কবরী

Pinterest LinkedIn Tumblr +

জনপ্রিয় চলচ্চিত্র অভিনেত্রী সারাহ বেগম কবরীকে বনানী কবরস্থানে সমাহিত করা হয়েছে। শনিবার বাদ জোহর জানাজা শেষে কবরীকে দাফন করা হয়। দাফনের আগে তাকে ‘গার্ড অব অনার’ দেওয়া হয়।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১৬ এপ্রিল শুক্রবার রাত ১২টার পর ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান এই অভিনেত্রী।

প্রথম ছবিতেই ভূবনমোহিনী হাসির জন্যে যার নাম হয়ে গেলো মিষ্টি মেয়ে, পাশের বাড়ির মেয়ে, তিনি আর কেউ নন, আমাদের সবার প্রিয় অভিনেত্রী, কিংবদন্তী কবরী। ৬০ এর দশকে লাখ দর্শকের মন জিতে নেওয়া এই অভিনেত্রী শোকের ছায়া নামিয়ে, অবশেষে পাড়ি দিলেন না না ফেরার দেশে।

১৯৭১ সালে বাংলাদেশের শিল্পী-সাহিত্যিক-সাংবাদিকদের যে দলটি সারা ভারত ঘুরে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে জনমত গঠনের কাজ করেন কবরী ছিলেন তাদের মধ্যে অন্যতম একজন। তিনি শুধু অভিনয়েই চৌকশ ছিলেন না। রাজনীতেও নিজের দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। ২০০৮ সালের নির্বাচনে, নারায়নগঞ্জ থেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে এমপি নির্বাচিত হন কবরী। তাই তিনি শুধু অভিনেত্রীই নন, তিনি একজন মুক্তিযোদ্ধা, একজন রাজনীতিবিদ। কবরীর মৃত্যুতে তাই শোকের ছায়া নেমে এসেছে রাজনীতির মাঠেও।

করোনা পরিস্থিতির এই সময়েও সাধারণ মানুষ শেষবারের মত একনজর দেখতে আসেন তাদের সবার প্রিয় পাশের বাড়ির মেয়েটিকে।

বাংলাদেশের চলচ্চিত্র জগতের সোনালী সময়ের, বিশেষ একটি অধ্যায়ের নাম কবরী। ‘সুতরাং’ সিনেমার জরিনা, সাত ভাই চম্পা’র পারুল, সুজন সখী’র সখী, সারেং বৌ’র নবীতুনসহ তাঁর অজস্র সৃষ্টির কবরীকে ভুলবেনা বাংলাদেশ।

Share.

Leave A Reply