fbpx

বইমেলায় তিন স্তরের নিরাপত্তা

Pinterest LinkedIn Tumblr +

বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আগামী ১৮ মার্চ থেকে শুরু হতে যাচ্ছে বহু প্রত্যাশিত বইমেলা। করোনাভাইরাসের প্রকোপের ভেতরেই সকল স্বাস্থ্যবিধি মেনে বইমেলায় অংশগ্রহণের জন্য বাধ্যতামূলক মাস্ক পরা সহ নেয়া হয়েছে তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

আজ মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) সকালে ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার কৃষ্ণপদ রায় প্রস্তুতির কাজ দেখতে মেলা প্রাঙ্গণ পরিদর্শন করেন। পরিদর্শন শেষে অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্পে সাংবাদিকদের সাথে মেলার নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে কথা বলেন তিনি।

বইমেলায় তিন স্তরের নিরাপত্তা

মেলায় অংশগ্রহণের জন্য বাধ্যতামূলক মাস্ক পরা সহ নেয়া হয়েছে তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা। ছবি: সংগৃহীত

কৃষ্ণপদ বলেন, এবার করোনা পরিস্থিতিকে মাথায় রেখেই মেলায় তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। মেলায় ক্রেতা-বিক্রেতা-দর্শনার্থীদের সবাইকে বাধ্যতামূলক মাস্ক পরে যেতে হবে। এবার মেলায় প্রতিটি প্রবেশপথে আর্চওয়ে থাকবে। আর মেলা থেকে বের হবার জন্য থাকবে আলাদা পথ। তাছাড়া, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি সংলগ্ন সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের ফটক ও বাংলা একাডেমির বিপরীত পাশ দিয়ে ভিড় এড়ানোর জন্য প্রবেশের ও বের হবার আরো দু’টি পথ থাকছে এবার।

মেলায় নিরাপত্তা কাঠামোর কিছুটা পরিবর্তন করা হয়েছে বলেও জানান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার। মোবাইল পেট্রোল ও ফুট পেট্রোল থাকবে এবার। তিনি বলেন, মেলার গেইটে হাত ধোয়া ও স্যানিটাইজ করার ব্যবস্থা করা হয়েছে। যারাই মেলায় যাবে এবার, তাদেরকে অবশ্যই মাস্ক পরার পাশাপাশি হাত স্যানিটাউজ করে ভেতরে প্রবেশ করতে হবে।

কৃষ্ণপদ আরো জানান, মেলায় গাড়ি রাখার জন্য এবার বিশেষ ব্যবস্থা করা হয়েছে। বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের মাঝের রাস্তা পথচারীদের জন্য খোলা রাখা হবে। এছাড়া, সাদা পোশাকে পুলিশ সদস্যরা আর্চওয়েতে তল্লাশি ও সিসিটিভিতে নজর রাখবেন। পাশাপাশি গোয়েন্দা বিভাগের সদস্যরাও থাকছে এবার।

এবারের বইমেলার আয়োজন উৎসর্গ করা হচ্ছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীকে। তাই মেলার কারুকাজ ও আলোকচিত্র জুড়ে থাকবে স্বাধীনতার চেতনার প্রকাশ।

বইমেলায় তিন স্তরের নিরাপত্তা

বইমেলার আয়োজন উৎসর্গ করা হচ্ছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীকে। ছবি: সংগৃহীত

এ বছর বইমেলার নিরাপত্তা বিষয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার মোহাম্মদ সাজ্জাদুর রহমান বলেন, মেলায় ৩২০টি সিসি ক্যামেরা বসানো হয়েছে। করোনা পরিস্থিতির কারণে মেলার পরিধি বাড়ানোর ফলে এবার প্রায় ১৫ লাখ বর্গফুটের বিশাল জায়গা পাওয়া যাচ্ছে, যা গতবারের তুলনায় প্রায় দুইগুণ।

এদিকে, করোনা সংক্রমণ আবারো বেড়ে যাবার কারণে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ আজ বলেছেন, করোনা পরিস্থিতি যদি আরো খারাপের দিকে যায়, আর মেলা চালিয়ে যাবার সুযোগ যদি না থাকে, সেক্ষেত্রে মেলা বিষয়ে নতুন করে সিদ্ধান্ত নিয়ে হবে।

আজ মঙ্গলবার বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্য বিশারদ মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে প্রতিমন্ত্রী এ কথা বলেন।

বইমেলায় তিন স্তরের নিরাপত্তা

বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্য বিশারদ মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। ছবি: সংগৃহীত

Share.

Leave A Reply