fbpx
BBS_AD_BBSBAN
৪ঠা ডিসেম্বর ২০২২ | ১৯শে অগ্রহায়ণ ১৪২৯ | পরীক্ষামূলক প্রকাশনা

বাইডেনের সঙ্গে আলোচনায় বসতে চায় হুয়াওয়ের প্রতিষ্ঠাতা

Pinterest LinkedIn Tumblr +
Advertisement

যুক্তরাষ্ট্রের কালো তালিকাভুক্ত হওয়ার পর থেকেই যেন হুয়াওয়ের কপালে দুর্দিন নেমে এসেছে। অমাবস্যার ঘন কালো মেঘ যেনো প্রতিষ্ঠানটির মাথার ওপর থেকে সরছেই না।

তাইতো নিজেদের অনেক কার্যক্রম গুটিয়ে নিয়ে এসেছে চীনা এই কোম্পানিটি। এমনকি অনেক ডিভাইসের উৎপাদনও বন্ধ করে দিয়েছে। সবার মনে শুধু একটি প্রশ্নই উঁকি দিচ্ছিল, তাহলে কি ব্যবসা বন্ধ করে দিচ্ছে হুয়াওয়ে?

তবে হুয়াওয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রেন ঝেংফেই শেষ রক্ষা হিসেবে আরেকবার চেষ্টা করতে চান। তিনি বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সাথে আলোচনায় বসতে চান। প্রায় এক বছরের বেশি তিনি চীনের কোনো গণমাধ্যমে কথা বলেন নি। তবে এখন তিনি বাইডেনের নতুন প্রশাসনের সাথে কথা বলে ‘উন্মুক্ত নীতির’ ব্যাপারে আলোচনা চালাতে চান। দ্য ভার্জের এক প্রতিবেদন এমনটাই বলছে।

দ্য ভার্জকে দেওয়া অনুবাদকৃত মন্তব্যে এবং সিএনবিসি, এএফপি এবং দক্ষিণ চীন মর্নিং পোস্টের প্রতিবেদনের ভাষ্যমতে, রেন বলেন, ‘আমি বাইডেনের আহ্বানকে স্বাগত জানাব। আমি তার সাথে সাধারণ উন্নয়নের বিষয়ে কথা বলব। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং চীন উভয়েরই তাদের অর্থনীতি বিকাশ করা দরকার, কারণ এটি আমাদের সমাজ এবং আর্থিক ভারসাম্যের পক্ষে শুভকর।’

রেন আরও বলেন, ‘মার্কিনরা যদি চীনা গ্রাহকদের পণ্য সরবরাহ করার অনুমতি দেয়, এটা তাদের নিজের জন্য ভালো। আর যদি হুয়াওয়ের উত্পাদন ক্ষমতা বাড়ানো হয়, তবে এর অর্থ মার্কিন সংস্থা আরও বিক্রি করতে পারে। এটি একটি জয়ের পরিস্থিতি।’

আমি বিশ্বাস করি যে, নতুন প্রশাসন তাদের নীতিগুলি বিবেচনা করার সাথে সাথে এই স্বার্থগুলোর ভারসাম্য বজায় রাখবে। আমরা এখনও মার্কিন প্রচুর উপাদান, যন্ত্রাংশ এবং যন্ত্রপাতি ক্রয় করতে সক্ষম। আশা করি, মার্কিন সংস্থাগুলোও যেনো চীনা অর্থনীতির সাথে বিকাশলাভ করতে পারে বলেও উল্লেখ করেন হুয়াওয়ের এই প্রতিষ্ঠাতা।

তবে তিনি তার স্মার্টফোন কোম্পানি বিক্রি না করারও ইঙ্গিত দেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ১৫ মে  যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট  ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন আনুষ্ঠানিকভাবে হুয়াওয়েকে যুক্তরাষ্ট্রে কালো তালিকাভুক্ত করে। এর ফলে সরকারি অনুমোদন ছাড়া মার্কিন সংস্থা থেকে প্রযুক্তিসেবা নেওয়ার পথ বন্ধ করা হয় হুয়াওয়ের জন্য।

Advertisement
Share.

Leave A Reply