fbpx

বাজি ধরে তিনমাস নিষিদ্ধ ইংলিশ পেসার কার্স

Pinterest LinkedIn Tumblr +
Advertisement

ক্রিকেট ম্যাচে বাজি ধরায় ইংল্যান্ড জাতীয় দল ও ডারহাম কাউন্টি ক্লাবের ফাস্ট বোলার ব্রাইডন কার্সকে সব ধরণের ক্রিকেট থেকে ৩ মাসের জন্য নিষিদ্ধ করেছে ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। পাশাপাশি ১৩ মাসের স্থগিত নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে এই পেসারকে।

ব্রাইডন কার্স পাঁচ বছর আগে থেকেই ক্রিকেট ম্যাচ নিয়ে জুয়া খেলতেন। ২০১৭ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত বিভিন্ন ক্রিকেট ম্যাচ নিয়ে ৩০৩টি বাজি ধরেন। যদিও সেসব ম্যাচে খেলেননি কার্স। তার ৩ মাসের শাস্তির মেয়াদ শেষ হবে আগামী ২৮ আগস্ট।

সাম্প্রতিক সময়ে তার বিরুদ্ধে ক্রিকেটের দুর্নীতিবিরোধী নিয়ম লঙ্ঘনের অভিযোগ আনে ‘ক্রিকেট রেগুলেটর’। এই সংস্থাটি ইসিবির অধীনে স্বাধীন একটি সংস্থা যাদের কাজ হচ্ছে ক্রিকেটের নিয়মনীতির সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত বিষয়াদি পর্যবেক্ষণ করা এবং নিয়মনীতির প্রতি সবার আনুগত্য জোরদার করা। ২৮ বছর বয়সী কার্সকে নিয়ে তদন্তও করেছে ‘ক্রিকেট রেগুলেটর’। তাদের কাছে দোষ স্বীকার করেন কার্স।

ক্রিকেট রেগুলেটর’ বিবৃতিতে বলেছে, ‘তদন্তের কাজে কার্স আমাদের সহযোগিতা করেছেন এবং কৃতকর্মের জন্য অনুশোচনা করেছেন। বিষয়টি আমরা বিবেচনা করেছি।’

ক্রিকেটের দুর্নীতিবিরোধী একটি ধারায় স্পষ্ট উল্লেখ আছে, পেশাদার কোনো খেলোয়াড় বা কোচ বা কোচিং স্টাফের সদস্য এবং খেলাটির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট যে কেউ বিশ্বের কোথাও বাজি ধরতে পারবেন না। এই নিয়মেই খেলা থেকে দূরে থাকতে হচ্ছে ইংল্যান্ডের হয়ে এখন পর্যন্ত ১৪টি ওয়ানডে এবং ৩টি টি-টোয়েন্টি খেলা কার্সকে।

Advertisement
Share.

Leave A Reply