fbpx

বাড়ছে করোনার উত্তাপ, কাল থেকে টিকা দেবে যুক্তরাষ্ট্র

Pinterest LinkedIn Tumblr +

করোনার উত্তাপ দিন দিন বেড়েই চলেছে। এখন পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৭ কোটি ২১ লাখ মানুষ। আর প্রাণ হারিয়েছেন ১৬ লাখের বেশি।

করোনা সংক্রমণ সম্পর্কিত পরিসংখ্যান নিয়ে কাজ করা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, রবিবার (১৩ ডিসেম্বর) বিশ্বে করোনা সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ কোটি ২১ লাখ ৩ হাজার ৬৮৫ জন। একই সময় নাগাদ বিশ্বে করোনায় মোট মারা গেছেন ১৬ লাখ ১১ হাজার ৪৯৭ জন। আর এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৫ কোটি ৪ লাখ ৮৯ হাজার ৬১৬ জন।

এই মহামারীকে সামাল দিতে নাকানিচুবানি খেতে হচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে। ফলে দেশটিতে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যাও হু হু করে বাড়ছে। দেশটিতে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১ কোটি ৬৫ লাখ ৪৯ হাজার ৩৬৬ জন। আর মারা গেছেন ৩ লাখ ৫ হাজার ৮২ জন। দেশটিতে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৯৬ লাখ ৪৪ হাজার ৩২৫ জন।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রে সোমবার থেকে ফাইজার ও বায়োএনটেকের করোনাভাইরাস টিকা দেওয়া হবে বলে জানা গেছে। দেশটিতে জরুরি প্রয়োজনে এই টিকা ব্যবহারের অনুমোদন দেয় এফডিএ।

টিকা বণ্টনের তদারকির দায়িত্বে থাকা জেনারেল গুস্তাভে পেরনা জানিয়েছেন, শুরুতে এই সপ্তাহের শেষ দিক পর্যন্ত অঙ্গরাজ্যগুলোতে ৩০ লাখ ডোজ টিকা বন্টন করা হবে।

শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র সরকারের ‘অপারেশন র‌্যাপ স্পিড’ এর আওতায় আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সরবরাহ করার জন্য টিকার অনেক ডোজ শিপিং করা হবে’।

আশা করা যাচ্ছে, বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের ১৪৫টি জায়গায় সোমবার টিকা পৌঁছে যাবে। আর মঙ্গলবার ৪২৫টি জায়গায় এবং বুধবার শেষ ৬৬টি জায়গায় টিকা পৌঁছাবে বলেও জানান তিনি।

অন্যদিকে বরাবরের মতোই সংক্রমণ তালিকার ২য় স্থানে আছে দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম দেশ ভারত। তবে দেশটিতে আপাতত এই পরিস্থিতি অনেকটা স্থিতিশীল আছে। এখন পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৯৮ লাখ ৫৭ হাজার ৩৮০। আর প্রাণ হারিয়েছে ১ লাখ ৪৩ হাজার ৫৫ জন।

ক্ষতিগ্রস্ত দেশ হিসেবে তৃতীয় অবস্থানে আছে ব্রাজিল। সেখানে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৬৮ লাখ ৮০ হাজার ৫৯৫। আর করোনায় মারা গেছেন ১ লাখ ৮১ হাজার ১৪৩ জন।

তালিকার চতুর্থ স্থানে রাশিয়া, পঞ্চম ফ্রান্স, ষষ্ঠ ইতালি, সপ্তম যুক্তরাজ্য,অষ্টম স্পেন, নবম আর্জেন্টিনা এবং দশম স্থানে আছে কলম্বিয়া। এই তালিকায় বাংলাদেশের স্থান ২৬তম।

তবে নতুন করে মেক্সিকোতে করোনায় আক্রান্ত মৃত ব্যক্তির সংখ্যা বাড়ছে। দেশটিতে একদিনে ৬৮৫ জন মারা গেছে।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহান শহরে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। চলতি বছরের ৯ জানুয়ারি দেশটিতে করোনায় প্রথম রোগীর মৃত্যু হয়। কিন্ত তার ঘোষণা আসে ১১ জানুয়ারি।

চীনের বাইরে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় থাইল্যান্ডে। পরে বিভিন্ন দেশে করোনা ছড়িয়ে পড়ে।

এরপর চীনের বাইরে ফিলিপাইনে গত ২ ফেব্রুয়ারি করোনায় প্রথম কোনো রোগীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটে ।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা গত ১১ মার্চ করোনাকে বৈশ্বিক মহামারী হিসেবে ঘোষণা করে।

Share.

Leave A Reply