fbpx

বিশ্ব করোনা পরিস্থিতি : যুক্তরাষ্ট্রে থামছে না মৃত্যু মিছিল

Pinterest LinkedIn Tumblr +

কিছুতেই দাপট কমছে না করোনা ভাইরাসের। একের পর এক তান্ডব চালিয়ে যাওয়া এই ভাইরাসে এখন পর্যন্ত বিশ্বে সংক্রমিত হয়েছেন প্রায় ৬ কোটি ৭৪ হাজার জন। আর প্রাণ হারিয়েছেন প্রায় সাড়ে পনের লক্ষ মানুষ।

করোনা সম্পর্কিত পরিসংখ্যান নিয়ে কাজ করা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৬ কোটি ৭৩ লাখ ৯২ হাজার ৭১২ জন। একই সময় নাগাদ বিশ্বে করোনায় মোট মারা গেছেন ১৫ লাখ ৪১ হাজার ৭৪৫ জন। আর এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৪ কোটি ৬৫ লাখ ৮৩ হাজার ৮৬০ জন।

এই মহামারীকে সামাল দিতে নাকানিচুবনি খেতে হচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে। ফলে দেশটিতে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যাও হু হু করে বাড়ছে। করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১ কোটি ৫১ লাখ ৫৯ হাজার ৫২৯। আর মারা গেছেন ২ লাখ ৮৮ হাজার ৯০৬ জন। দেশটিতে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৮৮ লাখ ৫৫ হাজার ৫৯৩ জন।

এই তালিকার ২য় স্থানে আছে দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম দেশ ভারত। এখন পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৯৬ লাখ ৭৭ হাজার ২০৩। আর প্রাণ হারিয়েছে ১ লাখ ৪০ হাজার ৫৯০ জন।

ক্ষতিগ্রস্ত দেশ হিসেবে তৃতীয় অবস্থানে আছে ব্রাজিল। সেখানে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৬৬ লাখ ৩ হাজার ৫৪০। আর করোনায় মারা গেছেন ১ লাখ ৭৬ হাজার ৯৬২ জন।

তালিকার চতুর্থ স্থানে রাশিয়া, পঞ্চম ফ্রান্স, ষষ্ঠ ইতালি, সপ্তম যুক্তরাজ্য,অষ্টম স্পেন, নবম আর্জেন্টিনা এবং দশম স্থানে আছে কলম্বিয়া। এই তালিকায় বাংলাদেশের স্থান ২৬তম।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহান শহরে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। চলতি বছরের ৯ জানুয়ারি দেশটিতে করোনায় প্রথম রোগীর মৃত্যু হয়। কিন্ত তার ঘোষণা আসে ১১ জানুয়ারি।

চীনের বাইরে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় থাইল্যান্ডে। পরে বিভিন্ন দেশে করোনা ছড়িয়ে পড়ে।

এরপর চীনের বাইরে ফিলিপাইনে গত ২ ফেব্রুয়ারি করোনায় প্রথম কোনো রোগীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটে ।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ১১ ফেব্রুয়ারি করোনাভাইরাস থেকে সৃষ্ট রোগের নামকরণ করে ‘কোভিড-১৯’। সংস্থাটি গত ১১ মার্চ করোনাকে বৈশ্বিক মহামারি ঘোষণা করে।

Share.

Leave A Reply