fbpx

মরিশাসের রাজধানীতে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব স্ট্রিট’

Pinterest LinkedIn Tumblr +

মরিশাসের রাজধানী পোর্ট লুইস’র একটি সড়ক বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর নামে নামকরণ করা হয়েছে। মরিশাসের সাথে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরো দৃঢ় করার প্রত্যয় নিয়ে অঙ্গীকারবদ্ধ বলে জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাজধানী পোর্ট লুইস’র সড়কে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব স্ট্রিট’ নামকরণ উপলক্ষে এক ভিডিও বার্তায় এ অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন প্রধানমন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার (১৭ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ সময় দুপুর একটায় ভার্চুয়ালি এ সড়কের নামকরণ অনুষ্ঠান উদ্বোধন করা হয়। বাংলাদেশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষ থেকে কর্মকর্তারা মরিশাস প্রান্তের সঙ্গে যুক্ত হন। বাংলাদেশ অংশে ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এবং প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী ইমরান আহমদ। পোর্ট লুইস প্রান্তে যুক্ত ছিলেন মরিশাসের উপ প্রধানমন্ত্রী ড. মোহাম্মদ আনোয়ার হুসনু।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন,  ‘আমাদের মধ্যকার বিদ্যমান দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে এক নতুন উচ্চতায় নিয়ে যেতে আমরা একসঙ্গে চলার জন্য অঙ্গীকারবদ্ধ।’ তিনি বলেন, ‘আমরা আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক ফোরামে একে অপরকে সমর্থন দেই। আমি বিশ্বাস করি, আগামী বছর ইন্ডিয়ান ওশান রিম অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব গ্রহন করার পর বাংলাদেশ আগামী দিনগুলোতে দু’দেশের মধ্যকার সহযোগিতা ও সমঝোতার সম্পর্ক আরো সুদৃঢ় করার লক্ষ্যে কাজ করবে।’

স্বর্গীয় দ্বীপ খ্যাত মরিশাসের রাজধানী পোর্ট লুইসের একটি সড়ক সর্বকালের সর্বশেষ্ঠ বাঙালি, বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে নামকরণ করা হয়েছে জানতে পেরে আনন্দ প্রকাশ করেছেন শেখ হাসিনা। এ সময় তিনি জাতীয় চার নেতা, মুক্তিযুদ্ধে জীবন উৎসর্গকারী শহীদ ও সম্ভ্রম হারানো নারী এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতার জন্য মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহণকারী সকল বীর মুক্তিযোদ্ধাকে গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন।

ভিডিও এ বার্তায় তিনি ‘ব্লু ইকোনোমি’ সম্পর্কে বলেন, বাংলাদেশে সমুদ্র সম্পদের টেকসই ব্যবহারের ব্যাপক সম্ভাবনা রয়েছে। এক্ষেত্রে, মরিশাসের যে ব্যাপক অভিজ্ঞতা রয়েছে, তা থেকে আমাদের দেশও উপকৃত হতে চায় বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।

এ সময় বাংলাদেশ ও মরিশাস দুই দেশের জনগণের শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বাংলাদেশ দূতাবাস, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও মরিশাস সরকারের সার্বিক তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠানটি আয়োজিত হয়।

Share.

Leave A Reply