fbpx

মেহরাব জুনিয়র এখন কানাডার পুলিশ

Pinterest LinkedIn Tumblr +
Advertisement

মেহরাব হোসেন জুনিয়র খেলেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের জাতীয় দলের হয়ে। তবে থিতু করতে পারেননি নিজের জায়গা। জাতীয় দলের জার্সিতে সর্বশেষ খেলেছিলেন ২০০৯ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। এরপর লাল সবুজের জার্সিতে মাঠে নামার স্বপ্ন দেখলেও হয়ে ওঠেনি।

ক্রিকেটের পাশাপাশি দেশও ছেড়েছেন বেশ কয়েক বছর আগে। কানাডায় স্ত্রী ও তিন সন্তান নিয়ে বেশ ভালোই দিন কাটছে মেহরাব জুনিয়রের। তা বেশ ভালোই বোঝা যায়। ক্রিকেটেট মানুষটা এখন সামলাবেন কানাডার আইন শৃঙ্খলা। কারণ যোগ দিয়েছেন কানাডা পুলিশে।

আজকের সাকিব আল হাসান কিংবা মুশফিকুর রহিমদের সাথেই প্রায় ক্যারিয়ারটা শুরু হয়। সাকিব, মুশফিকরা দেশের ক্রিকেটে এখনও শাসন করে গেলেও ২০০৯ সালের পর জাতীয় দলে দেখা যায়নি এক সময়ে দেশের প্রকৃত অলরাউন্ডার হওয়ার স্বপ্ন দেখা মেহেরাব জুনিয়র।

২০০৬ সালে অনুর্ধ্ব -১৯ দলের বিশ্বকাপ দলে জায়গা পান আর সেখানে ব্যাট বল দুই হাতেই ছিলেন বেশ উজ্জ্বল। বিশ্বকাপে ১২ ম্যাচে ব্যাট হাতে করেছিলেন ২১৩ রান আর বল হাতে নিয়েছিলেন ১৬ উইকেট। আর তাতেই কি না ২০০৬ সালে ভারতে অনুষ্ঠিত আইসিসির চ্যাম্পিয়ান ট্রফিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে অভিষেক হয় এই অলরাউন্ডারের।

ক্যারিয়ারটা খুব একটা বেশি উজ্জ্বল বলার সুযোগ নেই। ক্যারিয়ারে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে নিজের দ্বিতীয় টেস্টে ৮৩ রান ছাড়া মনে রাখার মত আর কোন ইনিংস নেই আর বল হাতেও তেমন কোন কিছু দেখাতে পারেননি।

তবে ঘরোয়া ক্রিকেটে নিয়মিতই পারফর্ম করে গেছেন মেহেরাব জুনিয়র তবে খুলেনি কখনো জাতীয় দলের দরজা। দেশের হয়ে খেলেছেন ৭ টি টেস্ট, ১৮ টি ওয়ান আর ২ টি মাত্র টি-২০। ব্যাট হাতে ৭ টেস্টে করেছেন ২৪৩ রান যেখানে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৮৩ রানের ইনিংসই ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস, ১৮ ওয়ানডেতে ২৭৬ রান ফিফটি আছে একটি আর ২ টি-২০ তে করেছেন মাত্র ১৬ রান। আর বল হাতে ৭ টেস্টে ৪ উইকেট, ১৮ ওয়ানডেতে পেয়েছেন ৪ উইকেট তবে কোন উইকেট নেই টি-২০ ক্যারিয়ারে।

মাঝখানে বেশ কিছুদিন ধারাভাষ্যেও কাটিয়েছেন তাতেও খুঁজে পাননি নিজের তৃপ্ততা।

Advertisement
Share.

Leave A Reply