fbpx
BBS_AD_BBSBAN
৬ই ডিসেম্বর ২০২২ | ২১শে অগ্রহায়ণ ১৪২৯ | পরীক্ষামূলক প্রকাশনা

সপ্তাহ ব্যবধানে বেড়েছে মুরগির দাম

Pinterest LinkedIn Tumblr +
Advertisement

সপ্তাহ ব্যবধানে রাজধানীর কাঁচাবাজারগুলোতে বেড়েছে মুরগির দাম। সোনালি মুরগির দাম কেজিতে ৫০ টাকা বেড়েছে। সেই সঙ্গে বেড়েছে বেশকিছু সবজির দাম। বিভিন্ন সবজির দাম কেজিতে বেড়েছে ৫-১০ টাকা করে।

শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

কাঁচাবাজারগুলোতে ব্যবসায়ীরা ব্রয়লার মুরগির কেজি ১৪০ থেকে ১৪৫ টাকা। তবে পাকিস্তানি কক মুরগির কেজি বিক্রি হচ্ছে ২৭০ থেকে ২৮০ টাকায় বিক্রি করছেন, যা গত সপ্তাহে যার দাম ছিল ২২০ থেকে ২৩০ টাকা।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, হোটেল-রেস্টুরেন্ট সব কিছু খুলে দেওয়া হয়েছে। মানুষ এখন অনেকটাই স্বাভাবিক চলাচল করছে। হোটেলগুলোতে বিক্রি বেড়েছে। বিভিন্ন অনুষ্ঠানও হচ্ছে। ফলে মুরগির চাহিদা বেড়েছে। এ কারণেই দাম বেড়েছে।

সবজির বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ব্যবসায়ীরা শিমের কেজি বিক্রি করছেন ১২০ থেকে ১৪০ টাকায়, গত সপ্তাহে যার দাম ছিল ১৬০ থেকে ২০০ টাকা। আর অপরিবর্তিত রয়েছে গাজর ও টমেটো দাম। গাজর ও টমেটোর কেজি বিক্রি হচ্ছে ১০০ থেকে ১২০ টাকা।

এদিকে দাম বাড়ার তালিকায় রয়েছে ঝিঙে। প্রতি কেজি ঝিঙে বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকায়, যা গত সপ্তাহে ছিল ৪০ থেকে ৫০ টাকা। করলা বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৭০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ৪০ থেকে ৫০ টাকা। চিচিঙ্গা বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা কেজি, যা গত সপ্তাহে ছিল ৩০ থেকে ৪০ টাকা।

এছাড়া পটলের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ৩০ থেকে ৪০ টাকা। ঢ়েঁড়সের কেজি পাওয়া যাচ্ছে ৪০ থেকে ৫০ টাকার মধ্যে, যা গত সপ্তাহে ছিল ৩০ থেকে ৪০ টাকা। বরবটির কেজি পাওয়া যাচ্ছে ৭০ থেকে ৮০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ৬০ থেকে ৭০ টাকায়।

কাঁচা পেঁপের কেজি ২০ থেকে ২৫ টাকা, কাঁচকলার হালি ২৫ থেকে ৩০ টাকা, লাল শাকের আঁটি ২০ থেকে ৩০ টাকা, মুলা শাকের আঁটি ১৫ থেকে ২০ টাকা, কলমি শাকের আঁটি ৫ থেকে ১০ টাকা বিক্রি হচ্ছে।

ব্যবসায়ীরা বলেন, শীতের আগাম সবজির সরবরাহ বাড়লেও অন্যান্য সবজির সরবরাহ বাড়ছে না। যে কারণে আগাম সবজির দাম কিছুটা কমেছে। বিপরীতে পটল, করলাসহ কিছু সবজির দাম বেড়েছে।

এদিকে মাছ বাজারে গিয়ে দেখা যায়, রুই মাছের কেজি ২৮০ থেকে ৩৮০ টাকা, মৃগেল মাছের কেজি  ২৪০ থেকে ২৮০ টাকা, তেলাপিয়া মাছ ১৬০ থেকে ১৮০ টাকা কেজি, পাবদা মাছের কেজি ৪৫০ থেকে ৬০০ টাকা এবং পাঙাস মাছ বিক্রি হচ্ছে ১২০ থেকে ১৬০ টাকা।

তবে বাজারে ছোট-বড় সব ধরনের ইলিশ মাছ পাওয়া যাচ্ছে। তবে দাম এখনো তুলনামূলক বেশি। বড় (এক কেজির ওপরে) ইলিশের কেজি বিক্রি হচ্ছে ১১০০ থেকে ১৩০০ টাকা। মাঝারি আকারের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৬০০ থেকে ৮০০ টাকা কেজি। আর ছোটগুলো ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। সপ্তাহের ব্যবধানে ইলিশের সরবরাহ বাড়লেও দাম কমেনি।

Advertisement
Share.

Leave A Reply