fbpx

সবচেয়ে কম খরচে ক্যাশ আউটের সুবিধা দিচ্ছে ‘উপায়’

Pinterest LinkedIn Tumblr +

বিশাল জনগোষ্ঠীকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আর্থিক সেবা প্রদান করতে ২০১১ সালে দেশে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা চালু হয়। মানুষের জীবনযাত্রায় লেনদেনকে আরও সহজ করতে এই মোবাইল ব্যাংকিংয়ের জুড়ি নেই।

এখন আর মানুষকে ব্যাংকে গিয়ে আগের মতো ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থেকে টাকা তুলতে হয় না। ঘরে বসেই সে টাকা তুলতে পারে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে। তাই এর চাহিদা আর গ্রাহক সংখ্যাও বাড়ছে দিন দিন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য মতে, দেশে এখন মোবাইল ব্যাংকিংয়ের গ্রাহক প্রায় ১০ কোটি। এর মধ্যে ৭০ শতাংশ বা প্রায় ৭ কোটি গ্রাহক লেনদেন করেন ফিচার (বাটন) ফোনে ইউএসএসডি কোডের মাধ্যমে।বর্তমানে ১৫ টি ব্যাংক এই সেবাটি প্রদান করছে।

ফিচার ফোনে ইউএসএসডি কোডের মাধ্যমে লেনদেনের খরচ কমিয়ে আনার উদ্যোগ নিয়ে ২০২১ সালের ১৭ মার্চ যাত্রা শুরু করে ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের মোবাইল ব্যাংকিং সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান ‘উপায়’। যারা গ্রাহকদের দিচ্ছে সবচেয়ে কম খরচে ক্যাশ আউট সুবিধা।

উপায়-এর ইউএসএসডি ব্যবহারকারী গ্রাহকরা ট্যাক্স ভ্যাট সহ প্রতি হাজারে মাত্র ১৪ টাকায় ক্যাশ আউট করতে পারবেন, যা বাজারে প্রচলিত অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং সেবাপ্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের তুলনায় সর্বনিম্ন।

গ্রাহকরা *২৬৮# ডায়াল করে ‘উপায়’ এর যেকোন এজেন্ট পয়েন্টে প্রয়োজনমতো টাকা ক্যাশ আউট  করতে পারবেন।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে বিকাশ এবং রকেট এর ক্যাশ আউট চার্জ প্রতি এক হাজার টাকায় ১৮ দশমিক ৫০ টাকা। আর ডাক বিভাগের মোবাইল ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠান নগদ নিচ্ছে ১৪ দশমিক ৯০ টাকা। সেখানে উপায় এর ক্যাশ আউট  চার্জ হাজারে ১৪ টাকা।

এ প্রসঙ্গে উপায় এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাইদুল হক খন্দকার বলেন, ‘বাংলাদেশের প্রায় ৭০ ভাগ মোবাইল লেনদেন সম্পন্ন হয় ইউএসএসডির মাধ্যমে। মুলত সমাজের সুবিধা বঞ্চিত, দরিদ্র ও স্বল্প আয়ের মানুষের এটি ব্যবহার করে থাকেন। এদের স্মার্টফোন এবং ইন্টারনেট ব্যাবহারের সুবিধা নেই। এই জনগোষ্ঠীর সুবিধার কথা ভেবেই আমরা তাদের জন্য বাজারের সবচেয়ে কম রেটে ক্যাশ আউট চার্জ নির্ধারণ করেছি।‘

এছাড়াও উপায় গ্রাহকরা ইউসিবিএল এর এটিএম ব্যাবহার করে হাজারে মাত্র ৮ টাকায় ক্যাশ আউট করতে পারবেন।

পাশাপাশি উপায় অ্যাপ ব্যবহারকারীরাও হাজারে ১৪ টাকা খরচ করে ক্যশ আউট করতে পারবেন। গুগল প্লে-স্টোর থেকে এই অ্যাপ ডাউনলোড করা যাবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়ম মেনে গ্রাহকরা কোন প্রকার চার্জ ছাড়াই এক একাউন্ট থেকে অন্য একাউন্টে যেকোনো পরিমাণে টাকা লেনদেন করতে পারবেন। আর মোবাইলে টাকা লেনদেন,  ইউটিলিটি বিল পেমেন্ট, কেনাকাটার মূল্য পরিশোধ, রেমিটেন্স গ্রহণ, বেতন প্রদান, এয়ারটাইমও কেনা যাবে এই অ্যাপ ব্যবহার করে।

এছাড়াও উপায় ব্যবহার করে গ্রাহকরা বিশেষ কিছু সেবা গ্রহণ করতে পারবেন। যেমন- ইন্ডিয়ান ভিসা ফি, ট্রাফিক ফাইন এবং তিতাস গ্যাসের (প্রি-প্রেইড) বিল পেমেন্ট ।

দীর্ঘ ৮ বছর ধরে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা দিয়ে যাওয়া ইউসিবির ‘ইউক্যাশ’ ব্র্যান্ড উপায় চালুর সাথে সাথেই বন্ধ হয়ে গিয়েছে। ইউক্যাশের গ্রাহকরা বর্তমানে উপায়ের গ্রাহক হিসেবে মোবাইল ব্যাংকিং সেবার সব ধরণের সুযোগ উপভোগ করতে পারছেন।

এই অ্যাপের নিরাপত্তা প্রসঙ্গে সাইদুল খন্দকার বলেন, ‘ডিজিটাল ব্যাংকিং ব্যবস্থায় হ্যাকিং,  প্রতারণা ইত্যাদির কারণে একাউন্টে থাকা টাকার নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ রয়েছে ব্যবহারকারীদের মাঝে। উপায় প্লাটফর্ম এসব ধরনের নিরাপত্তা ঝুঁকি থেকে মুক্ত। পাশাপাশি একাউন্ট-এর নিরাপত্তা নিশ্চিতে ডিভাইস অথেনটিকেশন ব্যবস্থা রয়েছে এবং মোবাইল হ্যান্ডসেট ও সিম গ্রাহকদের কাছে থাকলে, ও টি পি ( ওয়ান টাইম পিন) ব্যবহার করে কেউ তার একাউন্টে ঢুকতে পারবেনা। এখানে গ্রাহক নিরাপত্তাকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে।‘

Share.

Leave A Reply