fbpx

সাড়ে ৪ হাজার ইউনিয়নকে ব্রডব্যান্ড কানেক্টিভিটির আওতায় আনা হবে :পলক   

Pinterest LinkedIn Tumblr +

২০২১ সালের মধ্যে দেশের সাড়ে ৪ হাজার ইউনিয়ন পরিষদকে ফাইবার অপটিক হাইস্পীড ব্রডব্যান্ড কানেক্টিভিটির আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ।

রবিবার (২ মে) টেলিযোগাযোগ সুবিধা বঞ্চিত এলাকাসমূহের ব্রডব্যান্ড কানেক্টিভিটি স্হাপন প্রকল্পের কাজের শুভ উদ্বোধন উপলক্ষে অনলাইনে যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের যুগে ব্যবসা-বাণিজ্য,শিক্ষা, স্বাস্থ্যসহসহ সকল কার্যক্রম ইন্টারনেট নির্ভর হয়ে উঠেছে। বর্তমান দেশের প্রায় ৩৮ শ ইউনিয়নে ইতিমধ্যে হাইস্পীড ফাইবার অপটিক ক্যাবল কানেক্টিভিটি পৌঁছে গেছে।

আইসিটি বিভাগের কানেক্টেড বাংলাদেশ প্রকল্পের মাধ্যমে দুর্গম এলাকার ৬১৭ টি ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারে হাইস্পীড ইন্টারনেট কানেক্টিভিটি পৌঁছে দেয়া হবে এবং চলতি বছরে এর মূল অবকাঠামো তৈরির কাজ সম্পন্ন হবে বলেও জানান পলক।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশে বিটিসিএলের মাধ্যমে ১২০০, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল এর ইনফো সরকার ৩ প্রকল্পের আওতায় ২৬০০ ইউনিয়ন ফাইবার অপটিক্যালের মাধ্যমে ইন্টারনেট সংযোগ প্রদান করা হয়েছে।

যে সকল ইউনিয়ন বাকি থাকবে সেখানে, পাহাড় ও দ্বীপ, যেখানে ফাইবার অপটিক্যাল ক্যাবল নেওয়া যাচ্ছে না সেগুলোতে বঙ্গবন্ধু ১ স্যাটেলাইটের মাধ্যমে যুক্ত করা হবে। এর মাধ্যমে গ্রামে বসেই শহরের সুযোগ-সুবিধা ভোগ করতে পারবে এবং দুর্গম এলাকার তরুণ প্রজন্ম ফ্রিল্যান্সার হিসেবে নিজেদেরকে উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তুলতে পারবে বলেও জানান পলক।

তিনি বলেন, দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তোলার লক্ষ্যে‘প্রত্যেকটি সংসদীয় আসনে একটি করে ‘স্কুল অব ফিউচার’ মডেল স্কুল হবে। যেখানে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি, শিক্ষকদের উপস্থিতি, তাদের ক্লাসে উপস্থিত হওয়া, তাদের কোর্স কারিকুলাম সবকিছু অনলাইনে থাকবে। পাশাপাশি তাদের ‘স্কুল অব ফিউচার’ ল্যাবে তারা ফ্রন্টিয়ার টেকনোলজি সম্পর্কে হাতে কলমে শিক্ষা গ্রহণ করতে পারবে।’

তিনি কাজের গুণগত মান বজায় রেখে জনগণের ইন্টারনেট সেবা প্রদানে সদা সতর্ক থাকতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান।  উল্লেখ্য ১৩ টি উপজেলার ২১ টি ইউনিয়ন উক্ত অনুষ্ঠানে জুম অনলাইনে সংযুক্ত ছিল।

Share.

Leave A Reply