fbpx

সিডনির বন্যায় নিরাপদে আছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা

Pinterest LinkedIn Tumblr +

টানা প্রায় এক সপ্তাহ ভারী বৃষ্টি হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে। ভয়াবহ বন্যা ডেকে এনেছে তা। অস্ট্রেলিয়ার আবহাওয়া অধিদফতর পরিস্থিতিকে ‘সংকটপূর্ণ’ বলে উল্লেখ করেছে। প্রতিষ্ঠানটি আরও জানিয়েছে সাম্প্রতিক সময়ে এমন বন্যা নজিরবিহীন। এ পরিস্থিতি দেশটির ১৯৬১ সালের বন্যাকেও ছাড়িয়ে গেছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন সিডনিসহ নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্যের বেশ কিছু এলাকার বাসিন্দারা। তবে সুখবর হচ্ছে এ দুর্যোগে প্রবাসী বাংলাদেশিরা নিরাপদে আছেন।

দেশটির আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, বুধবার (২৪ মার্চ) থেকে বৃষ্টি থামলে বন্যার পানি সরে যেতে পারে।

সংবাদমাধ্যম সূত্র জানায়, গতকাল মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) বন্যাকবলিত ওয়েস্টার্ন সিডনি থেকে ৩ হাজার এবং মিড নর্থ কোস্ট থেকে প্রায় ১৫ হাজার বাসিন্দাকে সরিয়ে নেয়া হয়। মোর এলাকার বাসিন্দাদের এলাকা ছাড়ার জন্য প্রস্তুত থাকতে বলা হয়।

সিডনির বন্যায় নিরাপদে আছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা

সাম্প্রতিক সময়ে এমন দুর্যোগ দেখেনি সিডনি। ছবি: রয়টার্স

সংবাদমাধ্যম আরও জানায়, সিডনিতে এরইমধ্যে প্রায় ১৩০টি স্কুল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। বৃষ্টির পানির সঙ্গে জনপদে বয়ে যাওয়া মেনিং নদীর পানিও লোকালয়ে ঢুকে পড়ে বন্যা বাড়িয়ে তোলে। রাজ্যের প্রধান সড়কগুলো এরইমধ্যে বন্ধ রয়েছে। পানি ঢুকে পড়ায় প্যাসিফিক মহাসড়ক, প্যারামাটা, বেক্সলে, ম্যাকুইর স্ট্রিটসহ আরও অনেক সড়কই বন্যা কবলিত।

প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের এক তথ্যে জানা যায়, বাংলাদেশের প্রায় ২০ হাজার মানুষ অস্ট্রেলিয়ায় থাকেন। এদের বেশির ভাগই বাস করেন সিডনি ও নিউ সাউথ ওয়েলসে। তারা নিরাপদে আছেন এবং চলমান বন্যায় এখন পর্যন্ত কোনো প্রবাসী বাংলাদেশি ক্ষতিগ্রস্ত হননি বলে নিশ্চিত করেছে সংবাদমাধ্যম সূত্র।

Share.

Leave A Reply