fbpx

স্যানিটারি ন্যাপকিন ব্যবহারে সতর্কতা

Pinterest LinkedIn Tumblr +

স্যানিটারি ন্যাপকিন মেয়েদের জীবনের সাথে অঙ্গাঅঙ্গিভাবে জড়িত। গ্রামের মা, দাদি বা মেয়েরা কাপড় ব্যবহার করলেও শহুরে মেয়েরা পিরিয়ডের সময় স্যানিটারি ন্যাপকিন ব্যবহার করে।

স্যানিটারি ন্যাপকিন নিয়ে বিভিন্নজনে বিভিন্ন কথা বলে থাকেন। কোন কোন চিকিৎসক বলেন এটা ব্যবহার একেবারেই স্বাস্থ্যসম্মত নয়, আবার কোন কোন চিকিৎসক বলেন, একটা নির্দিষ্ট সময় পর পর ন্যাপকিন পরিবর্তন করলে বিপদের আশংকা থাকে না। তবে স্যানিটারি ন্যাপকিন ব্যবহারে কয়েকটি বিষয়ে সচেতন থাকতে হবে।

স্যানিটারি ন্যাপকিন ব্যবহারের সময় যা মাথায় রাখা উচিত

১। ন্যাপকিন ব্যবহার করার আগে অবশ্যই হাত ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিতে হবে। না হলে হাতে থাকা জীবাণু শরীরে প্রবেশ করতে পারে।

২। প্রত্যেকবার স্যানিটারি ন্যাপকিন ব্যবহার করার সময় প্যাকেটের গায়ে মেয়াদ দেখে নেবেন। মেয়াদ উত্তীর্ণ ন্যাপকিন ভুলেও ব্যবহার করবেন না।

৩। অফিসে বা বিভিন্ন কাজে বাড়ির বাইরে থাকার কারণে অনেকেই ন্যাপকিন বদলানোর সময় পান না। টানা ঘণ্টার পর ঘণ্টা একই ন্যাপকিন পরে থাকলে শরীরে ক্ষতিকর প্রভাব পড়তে পারে। খেযাল রাখুন, প্রতি চার থেকে ছয় ঘণ্টা অন্তর স্যানিটারি ন্যাপকিন বদলানো উচিত।

৪। বাজারে এখন বিভিন্ন ব্রান্ডের ন্যাপকিনের ছড়াছড়ি। যে ব্র্যান্ডের ন্যাপকিনই ব্যবহার করুন না কেন, রঙিন বা সুগন্ধিযুক্ত ন্যাপকিন ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন। এসব ন্যাপকিনে রাসায়নিক পদার্থ দেওয়া থাকে। এতে মারাত্মক বিপদ ডেকে আনতে পারে।

৫। কিছু দিন পরপরই ন্যাপকিনের ব্র্যান্ড বদলাবেন না। একই সংস্থার জিনিস ব্যবহার করতে পারলে ভালো। ন্যাপকিন ব্যবহারের ক্ষেত্রে দরকার হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারেন।

Share.

Leave A Reply