fbpx

১৬ জেলায় ৮৫টি মামলায় প্রায় ২৪ হাজার আসামি

Pinterest LinkedIn Tumblr +

কুমিল্লার ঘটনাকে কেন্দ্র করে সম্প্রতি দেশে ১৬ জেলায় হিন্দুদের বাড়িঘর, পূজামণ্ডপ, মন্দিরে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এই হামলায় ঘটনায় এখন পর্যন্ত মামলা হয়েছে ৮৫ টি। মামলায় আসামি হলেন ২৩ হাজার ৯১১ জন, এদের মধ্যে গ্রেপ্তার হয়েছেন ৬৮৩ জন। আসামি ও গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের মধ্যে বিএনপি-জামায়াত ও ছাত্রলীগের নেতা-কর্মী রয়েছেন, আছেন রাজনৈতিক নেতা–কর্মীও আছে।

হাজীগঞ্জের ঘটনায় এ পর্যন্ত ১০টি মামলা নিয়েছে পুলিশ। এসব মামলায় প্রায় ৫ হাজার ব্যক্তিকে আসামি করা হয়। ঘটনার পর থেকে জামায়াত নেতা কামাল উদ্দিনসহ ৩৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতরা সবাই এখন জেলহাজতে আছেন।

এদিকে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে হামলা-ভাঙচুর ও পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় জামাল হোসেন (এসআই) বাদী হয়ে মামলা করেন। ওই মামলায় বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লাকেও হুকুমের আসামি করা হয়েছে। এই মামলায় ৩ নম্বর আসামি করা হয়েছে জেলা যুবদলের সভাপতি মঞ্জুরুল আজিম ওরফে সুমনসহ দলের ১০-১২ জন নেতা-কর্মীকে।

এছাড়া চাঁদপুর, নোয়াখালী, রংপুর, চট্টগ্রাম ও ফেনীতে দায়ের করা মামলাগুলোতে আসামির নামের তালিকায় বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মী আছেন।

এক ঘটনায় রংপুরের পীরগঞ্জে মাঝিপাড়া গ্রামের বড়করিমপুর এলাকার হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িতে হামলা, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৬০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এদের মধ্যে ছাত্রলীগের এক নেতা ও মসজিদের একজন মুয়াজ্জিন রয়েছেন। গতকাল রোববার তাঁরা দুজনই আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন

পীরগঞ্জে সহিংসতার ঘটনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে পৃথক তিনটি মামলা এবং একটি অগ্নিসংযোগ, ভাঙচুর ও লুটপাটের মামলায় এখন পর্যন্ত ৬৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

চট্টগ্রাম নগরের জে এম সেন হলের পূজামণ্ডপে তোরণ ভাঙচুরের মামলায় ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হকের নেতৃত্বাধীন যুব ছাত্র অধিকার পরিষদের ১০ নেতা-কর্মীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

ফেনীতে চারটি মামলায় ৬৫০ জনকে আসামি করা হয়েছে। এর মধ্যে ১৮ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এদের মধ্যে একজন যুবদল, অপরজন স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা।

সিলেটে হাওলাদারপাড়া এলাকার দুটি পূজামণ্ডপে ১৫ অক্টোবর দুপুরে হামলার ঘটনায় ৪২ জনের নাম উল্লেখ ছাড়াও অজ্ঞাতনামা আরও ২০০ থেকে ২৫০ জনকে আসামি করে মামলা করেছিল সিলেট মহানগরের জালালাবাদ থানা-পুলিশ। এ ঘটনায় ১৬ অক্টোবর দিবাগত রাতে এজাহারভুক্ত ১২ আসামিকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে।

কুমিল্লা নগরের ঠাকুরপাড়া কালীতলা এলাকার রক্ষাময়ী কালীমন্দিরের প্রতিমা ভাঙচুর, আগুন লাগানো ও মারধরের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় এখন পর্যন্ত পুলিশ ২১ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

Share.

Leave A Reply