fbpx

আফগানিস্তানে বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪৭, দায় স্বীকার আইএসের

Pinterest LinkedIn Tumblr +

আফগানিস্তানের কান্দাহার শহরে একটি শিয়া মসজিদে বোমা বিস্ফোরণে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৭ জনে। আর আহতের সংখ্যাও ৭০ জনে পৌঁছেছে। সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা এমনটি জানিয়েছে। এদিকে এই ঘটনার দায় স্বীকার করেছে জঙ্গিগোষ্ঠী আইএসের আফগান শাখা (আইএস-কে)।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, গতকালই আইএস এ হামলার দায় স্বীকার করে বিবৃতি দিয়েছে। আইএসের মুখপত্র আমাক এ বিবৃতি প্রকাশ করেছে।এর আগে ৮ অক্টোবর কুন্দুজ শহরের একটি শিয়া মসজিদে জুমার নামাজের সময় হামলার দায়ও  স্বীকার করেছিল আইএস।

স্থানীয় এক তালেবান কর্মকর্তা এএফপিকে বলেন, ‘আমাদের হাতে আসা প্রাথমিক তথ্যে জানা গেছে, একজন আত্মঘাতী বোমা হামলাকারী মসজিদের ভেতর ঢোকার পর এ বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে। এ বিষয়ে আরও তথ্য পাওয়ার জন্য আমরা একটি তদন্ত কার্যক্রম শুরু করেছি।’

হামলার দায় স্বীকার করে আইএসের বিবৃতিতে বলা হয়, তাদের দুজন যোদ্ধা মসজিদের নিরাপত্তারক্ষীদের গুলি করে হত্যা করে। এরপর ভেতরে ঢুকে বিস্ফোরণ ঘটনায়।

আফগানিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাইদ খোসতি টুইট বার্তায় বলেন, ‘কান্দাহার শহরে শিয়া সম্প্রদায়ের একটি মসজিদে বোমা বিস্ফোরণের খবরে আমরা ব্যথিত হয়েছি। বিস্ফোরণে অনেকে শহীদ হয়েছেন, অনেকে আহত হয়েছেন।’

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, গতকাল শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) স্থানীয় সময় বিবি ফাতিমা মসজিদে জুমার নামাজ চলাকালে বিস্ফোরণটি ঘটে। দেশটির কান্দাহার শহরের ইমান বারগাহ শিয়া মসজিদে এ ঘটনা ঘটে। বিস্ফোরণে মসজিদের জানালার কাঁচ ভেঙে গেছে। বিস্ফোরণে হতাহত অনেককে মসজিদের মেঝেতে শুয়ে কাতরাতে দেখা গেছে। অনেকেই তাঁদের সাহায্যে এগিয়ে আসেন।

একজন প্রত্যক্ষদর্শী বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেছেন যে, মসজিদের প্রধান ফটকের কাছে তিনি তিনটি বিস্ফোরণের শব্দ শুনতে পেয়েছেন। বিস্ফোরণের সময় মসজিদটি মানুষে পূর্ণ ছিল। এবং এরপরই সেখানে ১৫টি অ্যাম্বুলেন্স ছুটে যায়।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, তালেবানের বিশেষ সৈন্যরা মসজিদটিকে ঘিরে রেখেছে এবং আহতদের চিকিৎসার জন্য সবাইকে রক্ত দিতে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়েছে।

উল্লেখ্য, এর আগে গত শুক্রবার (৮ অক্টোবর) জুমার নামাজের সময় কুন্দজ শহরের একটি শিয়া মসজিদে বোমা হামলায় শতাধিক হতাহত হয়। পরে আইএস এই হামলার দায় স্বীকার করে।

Share.

Leave A Reply