fbpx
BBS_AD_BBSBAN
৮ই ডিসেম্বর ২০২২ | ২৩শে অগ্রহায়ণ ১৪২৯ | পরীক্ষামূলক প্রকাশনা

পদ্মায় ফেরি চালু হবে ১০ দিনের মধ্যে: নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

Pinterest LinkedIn Tumblr +
Advertisement

স্রোত নিয়ন্ত্রণে এলে আগামী ১০ দিনের মধ্যে বাংলাবাজার-শিমুলিয়া রুটে আবারও ফেরি চলাচল শুরু করতে পারবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন, নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে আজ বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) সাংবাদিকদের এ কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী। এর আগে, প্রতিমন্ত্রীর সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন ঢাকায় নিযুক্ত ভারতের ডেপুটি হাই-কমিশনার বিনয় জর্জ।

উল্লেখ্য, পদ্মায় অস্বাভাবিক পানি বেড়ে তীব্র স্রোত দেখা দেওয়ায় গত ১৮ আগস্ট থেকে শিমুলিয়া-বাংলাবাজার রুটে অনির্দিষ্টকালের জন্য ফেরি চলাচল বন্ধ ঘোষণা করে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি)। এর আগে, পদ্মা সেতুতে পাঁচ দফা ফেরির ধাক্কা লাগে।

এ বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘মাওয়ায় এখনও ৪ নটিক্যাল মাইল বেগে স্রোত চলছে। এখনও অতিরিক্ত পানির প্রবাহ আছে এবং ক্রমেই তা বাড়ছে। স্রোতের গতি এর নিচে নামলে আমরা ফেরি চালু করব। এ অবস্থায় মাওয়া থেকে বাংলাবাজার যেতে সমস্যা না হলেও, বাংলাবাজার থেকে ফেরাটা খুব সমস্যা। স্রোতের গতি কমার আগে আমরা ঝুঁকি নিতে চাচ্ছি না’।

তিনি আরও বলেন, ‘গত বছর যখন ফেরিগুলো চলেছে, তখন স্প্যানগুলো বসানো ছিল না। এখন একটা সুনির্দিষ্ট পকেটের মধ্য দিয়ে ফেরিগুলো চালাতে হয়। কারণ সব স্প্যান বসে গেছে, পদ্মা সেতু অলমোস্ট রেডি আছে বলা যায়। এমন অবস্থায় যখন ঘূর্ণায়নগুলো শুরু হয়, তখন কিন্তু নিয়ন্ত্রণ করাটা কঠিন হয়ে যায়।’

খালিদ মাহমুদ জানান, ‘অতিরিক্ত যদি বৃষ্টিপাত না হয়, তবে আমরা ধারণা করছি আগামী ১০ দিনের মধ্যে পদ্মার স্রোত কন্ট্রোল হয়ে যাবে।’

বিকল্প ফেরিঘাট চালুর বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বিকল্প ফেরিঘাট আমরা মাঝিরকান্দিতে তৈরি করেছি। কিন্তু ১৩ নম্বর পিলারের ওখানে পলি জমে গেছে, বালু জমে গেছে, সেখানে ফেরি চলাচল সম্ভব না। আমরা দু’বার ট্রায়াল দিতে গিয়েও তা সম্ভব হয়নি, সেটা ড্রেজিং করতে হবে। ড্রেজার নিয়ে গিয়েছিলাম, পানির স্রোতের কারণে ড্রেজার টিকতে পারেনি। ড্রেজার নিতে গিয়ে আরেকটা ঝামেলা যদি হয়ে যায়। তাই এই মুহূর্তে আমরা ঝুঁকি নিতে চাচ্ছি না।’

Advertisement
Share.

Leave A Reply