fbpx

বিএনপির ২৪ দফা বাজেট ভাবনা: স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও কৃষিখাতে বরাদ্দ বাড়ানোর প্রস্তাব

Pinterest LinkedIn Tumblr +

২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণার পাঁচদিন আগে স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও কৃষিখাতের উপর গুরুত্ব দিয়ে ২৪ দফা বাজেট ভাবনা উপস্থাপন করেছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি। শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর গুলশানে দলের চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এই বাজেট উপস্থাপন করেন মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এবারের বাজেট হওয়া উচিত জীবন বাঁচানোর বাজেট, ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা ও ঝুঁকি মোকাবেলার বাজেট। এবারের বাজেট হবে করোনাভাইরাসের নিয়ন্ত্রণ ও অভিঘাত থেকে উত্তরণের বাজেট।‘

জীবন ও জীবিকা বিষয়ে বিএনপির মহাসচিব আরও বলেন, ‘বর্তমান বিরাজমান জটিল, সংকটজনক পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের একমাত্র উপায় হলো জীবন ও জীবিকার সমন্বয়ে সাধন করে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করা। বিএনপি এবারের বাজেটকে নির্দিষ্ট অর্থবছরের হিসাবের চেয়ে আগামী দিনের অর্থনীতির সুনির্দিষ্ট পথনির্দেশের যাত্রাবিন্দু হিসেবে দেখতে চায়। সেই লক্ষ্যে বিএনপি আগামী বাজেটকে ভবিষ্যতের অর্থনীতির নীতিকৌশল হিসেবে ‘সুশাসন ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণের অর্থনীতি’ প্রতিষ্ঠার অঙ্গীকার হিসেবে দেখতে চায়।‘

করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় স্বাস্থ্যখাতকে গুরুত্ব দেওয়ার বিষয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘স্বাস্থ্য খাতকে বাজেটের সর্বাধিক বরাদ্দের তালিকায় রাখতে হবে। চলমান বৈশ্বিক মহামারী প্রতিরোধ ও করোনা চিকিৎসা দুটিই সমানতালে চালিয়ে যাওয়ার জন্য সর্বোত্তম ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করতে হবে।‘

এছাড়া টেকসই স্বাস্থ্য ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠায় মহামারীর মতো সংকট মোকাবেলায় পর্যাপ্ত বিশেষায়িত হাসপাতাল নির্মাণ, জাতীয় স্বাস্থ্য কার্ড চালু, প্রত্যেক জেলায় ডেডিকেটেড সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা, করোনাকালে জেলা হাসপাতালগুলোতে বেড, আইসিইউর সংখ্যা বৃদ্ধির কথাও জানায় বিএনপি।

শিক্ষাখাতে বরাদ্দের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের ঝরে পড়া রোধ, বৃত্তি প্রদান, প্রযুক্তি সম্প্রসারণ, করোনাকালে ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষায়াতনে আর্থিক সহায়তা প্রদান, গবেষণা ও অবকাঠামো উন্নয়ন ও উচ্চ শিক্ষা প্রসারের লক্ষ্যে শিক্ষাখাতে বরাদ্দ বৃদ্ধি করতে হবে।’

কৃষি ও শিল্পখাতে জিডিপির ৫ শতাংশ বরাদ্দ রাখতে হবে উল্লেখ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘কৃষি, শিল্প ও সেবাখাতের বহুমুখীকরণ, উৎপাদন, প্রযুক্তিগত সক্ষমতা, উৎপাদনশীলতা ও প্রতিযোগিতায় টিকে থাকার মতো কৌশলগত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। কৃষিখাতে জিডিপির ৫% অর্থ বরাদ্দ করতে হবে।‘

পদ্মাসেতু, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র, পায়রা গভীর সমুদ্র বন্দর ও মাতারবাড়ি বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্পের মেয়াদ বৃদ্ধি করে কিভাবে দুর্নীতি করা হয়েছে তা তুলে ধরে বিএনপি মহাসচিব একটি ‘অর্থনৈতিক উপদেষ্টা পরিষদ’ গঠন করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান মির্জা ফখরুল।

এসময় কালো টাকা সাদা করার সুযোগ দেওয়ার বিষয়ে সমালোচনা করেন মির্জা ফখরুল। হরিলুট করে সঞ্চিত কালো টাকা জায়েজ করার দরজা বলেও অভিযোগ করেন বিএনপির এই নেতা।

গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুসহ বিএনপির অন্যান্য নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Share.

Leave A Reply