fbpx

আসছে শীত, বাড়ছে লেপের কদর

Pinterest LinkedIn Tumblr +

আসছে শীত, বাড়ছে লেপের কদর। তাই লেপ-তোষকের কারিগরদের ব্যস্ততাও বেড়েছে সারাদেশে। পাশাপাশি ব্যাবসায়ীরাও দোকান সাজিয়ে বিক্রি শুরু করেছেন শীতের গরম কাপড়।

গত সপ্তাহ থেকেই ঢাকার বাইরের জেলাগুলোতে শীত অনুভূত হচ্ছে। ভোরবেলায় কুয়াশায় ঢেকে যায় সবুজ মাঠ ও গাছপালা। পৌষ ও মাঘ মাস পুরো শীতকাল। শীত মোকাবিলায় পল্লী গ্রামের মানুষ আগেভাগেই লেপ-তোষক জোগাড় শুরু করেছেন। তাই শীতকে সামনে রেখে লেপ, তোষক কারিগরদের এখন যেন দম ফেলার ফুরসত নেই।

কেউ পুরনো লেপ ভেঙে নতুন করে বানিয়ে নিচ্ছেন। কেউ নতুন তুলার তৈরি লেপ, তোষক ও বালিশ অর্ডার করছেন দোকানীদের কাছে। আবার অনেকে শীতের জ্যাকেট ও গরম কাপড় কিনতে ভিড় করছেন গরম কাপড় বিক্রেতার দোকানে।

আসছে শীত, বাড়ছে লেপের কদরলেপ তোষকের কারিগর মো. রমজান আলী জানান, সারা বছরের মধ্যে তারা প্রায় ৬ মাস অন্য কাজ করেন। আর শীত আসার সঙ্গে সঙ্গে তাদের কদর বেড়ে যায়। এ সময়টায় তারা বিভিন্ন লেপ-তোষকের দোকানে গিয়ে প্রতিদিন ৬শ থেকে ৭শ টাকায় লেপ-তোষক তৈরি করে থাকেন। অনেক কারিগর লেপ প্রতি ২শ থেকে ৩শ টাকাও নেন।

দোকান মালিক আমিনুল ইসলাম বলেন, শীত জেঁকে না বসলেও অনেকে আগেভাগেই লেপ-তোষক বানাতে শুরু করে দিয়েছেন। অন্যবারের তুলনায় এ বছর ক্রেতার সংখ্যা অনেকটাই বেশি। পুরো বছরের চেয়ে শীতের এ তিন মাস বেচাকেনা একটু বেশিই হয়। তাই ক্রেতাদের কথা ভেবে জিনিসপত্রের গুণগত মান বজায় রেখে অর্ডারি কাজের পাশাপাশি রেডিমেড জিনিসও তৈরি করে বিক্রি করছেন। ক্রেতা আমেনা বেগম নামের এক গৃহবধূ জানান, শীতে মোটা কাঁথা-কম্বল যাই বলেন না কেন, লেপ ছাড়া শীতের মজা জমে না।

Share.

Leave A Reply