fbpx

হেফাজত নেতা মামুনুলের বিরুদ্ধে ১৭ মামলা

Pinterest LinkedIn Tumblr +

হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুলের বিরুদ্ধে শুধু ঢাকাতেই ১৭টি মামলা আছে বলে জানিয়েছেন তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার হারুন অর রশিদ। রবিবার দুপুরে মামুনুলকে গ্রেফতারের পর সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে একথা জানান তিনি।

মামুনুলের বিরুদ্ধে প্রথম মামলা হয় ২০১৩ সালের ৫ মে। এরপর মোহাম্মদপুর, মতিঝিল, পল্টন ও নারায়নগঞ্জেও তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা হয়েছে।

২০১৩ সালের ১২ মে কয়েকজন ব্লগারের বিরুদ্ধে ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটুক্তি করার অভিযোগসহ ১৩দফা দাবি তুলে  রাজধানীর শাপলা চত্ত্বরে অবস্থান নেয় হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা। ১৩ মে ভোর রাতের দিকে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযানে অবস্থানকারীদের উঠিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলে সহিংসতার ঘটনা ঘটে। সেই ঘটনায় হেফাজতের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে করা ১৫ মামলায় আসামি হিসেবে তালিকাভুক্ত হন মামুনুল হক।

মতিঝিলের শাপলা চত্বরে সহিংসতার ঘটনার পর একাধারে ১৫টি মামলার আসামি হন মামুনুল।

২০২০ সালের ৭ মার্চ মোহাম্মদপুর থানার একটি মামলায় মামুনুল হককে সাত নম্বর আসামি করা হয়। এলোপাতাড়ি মারধর, হত্যার উদ্দেশ্যে আঘাত করে গুরুতর জখম, চুরি, হুমকি দেওয়া, ধর্মীয় কাজে ইচ্ছাকৃতভাবে গোলযোগ সৃষ্টির অভিযোগ এনে মামলাটি করেন মোহাম্মদপুরের চাঁন মিয়া হাউজিংয়ের বাসিন্দা জি এম আলমগীর শাহীন।

ডিএমপি সদর দপ্তর থেকে জানা যায়, পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) মতিঝিল বিভাগে তদন্তাধীন আটটি মামলা, লালবাগ বিভাগে তদন্তাধীন দুটি মামলা এবং তেজগাঁও বিভাগে তদন্তাধীন একটি মামলার এজাহারভুক্ত আসামি মামুনুল হক। এ ছাড়া মতিঝিল থানায় তদন্তাধীন একটি এবং পল্টন থানায় তদন্তাধীন চারটি মামলায় নাম রয়েছে মামুনুলের।

হেফাজত নেতা মামুনুল সর্বশেষ মামলার আসামি হয়েছেন এ বছরের ৫ এপ্রিল। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ঢাকা সফরকে কেন্দ্র করে ২৬শে মার্চ বায়তুল মোকাররম মসজিদে জুমার নামাজের পর পুলিশের সাথে সংঘর্ষে জড়ায় হেফাজতসহ বেশ কয়েকটি ধর্মভিত্তিক দলের নেতাকর্মীরা। পরে এ ঘটনায় ঢাকা মহানগর যুবলীগের উপদপ্তর সম্পাদক খন্দকার আরিফ উজ জামান বাদী হয়ে মামুনুল হককে এক নম্বর আসামি করে মামলা করেন।

১৮ এপ্রিল রবিবার দুপুরে মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদ্রাসা থেকে গ্রেফতার করা হয় মামুনুল হককে। ২০২০ সালে মোহাম্মদপুর থানায় করা ভাংচুরের মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানান তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার হারুন অর রশিদ।

মামুনুলের বিরুদ্ধে মতিঝিল, পল্টন ও নারায়ণগঞ্জে যেসব মামলা আছে পরবর্তীতে তা সমন্বয় করা হবে বলেও জানায় হারুন অর রশিদ। সোমবার সকালে মামুনুলকে আদালতে তোলা হবে এবং এরপর রিমান্ড চাওয়া হবে বলেও জানান তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার।

Share.

Leave A Reply